জাগোনিউজ : ভারত-চীন সীমান্তের লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় দুই দেশের সেনাবাহিনীর সংঘর্ষে ভারতের অন্তত ২০ সেনা নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার ভারতের সরকারি সরকারি একটি সূতের বরাত দিয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে দেশটির সংবাদসংস্থা এএনআই। লাদাখে দুই দেশের সৈন্যদের মাঝে শারীরিক সংঘর্ষের সময় এই প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর সদস্যদের প্রাণহানির সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে এএনআইকে জানিয়েছে ওই সূত্র। সোমবার রাতে দুই দেশের সেনাবাহিনীর সদস্যদের মাঝে উত্তেজনা প্রশমনে শুরু হওয়া আলোচনা সংঘাতে রূপ নেয়।

মঙ্গলবার ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সোমবার রাতে লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চীনা সৈন্যরা ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশের চেষ্টা করলে বাক-বিতণ্ডা শুরু হয়। বাক-বিতণ্ডার এক পর্যায়ে তা শারীরিক সংঘাতে গড়ায়। এ সময় ইট-পাথর নিক্ষেপ এবং লাঠি নিয়ে উভয় পক্ষের সৈন্যরা সংঘাতে জড়ায়।

মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব বলেছেন, লাদাখে সংঘাতে উভয় দেশের সৈন্য হতাহত হয়েছে। সীমান্ত সংঘাতের এই ঘটনার পর ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং মঙ্গলবার দেশটির সামরিক বাহিনীর কর্মকর্তাদের সঙ্গে অন্তত দুটি বৈঠক করেছেন।

বার্তাসংস্থা এএনআই অপর এক প্রতিবেদনে লাদাখের সংঘর্ষে চীনের অন্তত ৪৩ সৈন্য হতাহত হয়েছে বলে জানিয়েছে। এদিকে, চীন সরকারের মুখপত্র হিসেবে পরিচিত রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত দৈনিক গ্লোবাল টাইমসের প্রধান সম্পাদক হু জিজিন এক টুইট বার্তায় বলেছেন, আমি যা জানি তা হলো- গালওয়ান উপত্যকার শারীরিক সংঘাতে চীনা সৈন্যও হতাহত হয়েছেন।

রাষ্ট্রীয় এই দৈনিকের সম্পাদক হুমকির সুরে টুইটে বলেছেন, আমি ভারতীয় পক্ষকে বলতে চাই, অহংকারী হবেন না এবং চীনের সংযত হওয়াকে দুর্বলতা হিসেবে ভাববেন না। ভারতের সঙ্গে সংঘাত চায় না চীন। তবে আমরা এটা নিয়ে কোনও ভয় পাই না।

গ্লোবাল টাইমসের প্রধান প্রতিবেদক এক টুইট বার্তায় চীন-ভারত সংঘর্ষে হতাহতের সংখ্যা প্রকাশ করেছেন। তিনি লিখেছেন, প্রতিবেদন বলছে- গতকাল চীন-ভারত সীমান্তে সংঘাতে পিপলস লিবারেশন আর্মির ৫ সৈন্য নিহত ও আরও ১১ জন আহত হয়েছেন।

ভারতীয় সৈন্যদের বিরুদ্ধে সীমান্ত অতিক্রম করে চীনা ভূখণ্ডে প্রবেশের অভিযোগ এনেছে বেইজিং। মঙ্গলবার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝ্যাও লিজিয়ান বলেছেন, ভারতীয় সৈন্যরা সোমবার অন্তত দু’বার সীমান্ত অতিক্রম করে অনুপ্রবেশের পর চীনা কর্মকর্তাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। যে কারণে দু’পক্ষের সৈন্যদের গুরুতর শারীরিক সংঘাত হয়েছে।

সৈন্যদের সীমান্ত অতিক্রম এবং সংঘাতে জড়ানোর এ ঘটনায় দিল্লির কাছে কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে বেইজিং। তিনি বলেন, আমরা আবারও আন্তরিকভাবে অনুরোধ করছি, বর্তমান দৃষ্টিভঙ্গি বদল করে ভারত তাদের সম্মুখসারীর সৈন্যদের সংযত রাখবে।

চীনা এই কর্মকর্তা বলেন, সীমান্ত অতিক্রম করবেন না, ঝামেলা বাড়ানোর উসকানি দেবেন না। সীমান্ত পরিস্থিতি জটিল করে তোলে এমন কোনও একপাক্ষিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন না।

সূত্র: এনএনআই, এনডিটিভি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •