যুগান্তর : গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর ফুসফুসের সংক্রমণ বেড়েছে বলে জানিয়েছেন তার চিকিৎসক। নতুন করে এন্টিবায়োটিক দিতে হচ্ছে। শরীর খুবই দুর্বল। নিয়মিত কিডনি ডায়ালাইসিস করছেন।

গণস্বাস্থ্য হাসপাতালে অধ্যাপক ডা. নাজিব মোহাম্মদের বরাত দিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দফতর প্রধান জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু যুগান্তরকে এ তথ্য জানান।

অক্সিজেন প্রয়োজন হয় না তবে গলার ব্যাথার জন্য কথা বলতে কষ্ট হচ্ছে। তাই ইশারায় আর লিখে তিনি কথার উত্তর দেন। চিকিৎসকগন তাঁকে কথা বলতে নিষেধ করেছেন। তার শরীরে করোনাভাইরাস ইনফেকশন নাই তবে ভ্যাকটোরিয়া ইনফেকশন অনেক বেশি। তাকে আরো বেশ কিছুদিন দিন হাসপাতালে থেকে চিকিৎসা নিতে হবে। তবে তিনি মানসিকভাবে অনেক উজ্জীবিত।”

আমি মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টায় তার চিকিৎসক কাছ থেকে তার শারীরিক অবস্থা জানতে পারি।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বর্তমানে তাঁর নিজের স্থাপিত প্রতিষ্ঠান গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে অধ্যাপক ডা. ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) মামুন মোস্তাফি এবং অধ্যাপক ডা. নাজিব মোহাম্মদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন আছেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ মে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। ১৩ জুন সকালে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র উদ্ভাবিত কিটে পরীক্ষা করে তাঁর করোনা নেগেটিভ পাওয়া গেছে। এদিকে গতকাল (সোমবার) পিসিআর ল্যাবের পরীক্ষাতেও তাঁর করোনা নেগেটিভ এসেছে। কিন্তু এখন তিনি নিউমোনিয়াজনিত জটিলতায় ভুগছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •