নুসরাত জাহান

তুমি ঐ দিন ঠিকই বলেছিলে…. আমরা মরা নিজেদের হারাতে হারাতে এমন এক নদীর কিনারে এসে দাঁড়িয়েছি যে, নদীর অর্ধেক জল আমরা পৌঁছাতে পারার আগেই শেষ হয়ে গেছে। আসলে জীবনের এ অধ্যায়টা এমনই। কেউ যদি একটু আগলে রাখে; একটু সামলে রাখতে চায়, মনে হয় তাকে জড়িয়ে ধরে কাটিয়ে দিই গোটা সন্ধ্যে। সময়ের কথা ভুলে… সময়টা তাকে ঘিরে কাটিয়ে দিই হাসিমুখে। হ্যা জানি, রাত নামলে সে ও ফিরবে নিজ গন্তব্যে। আর আমি বড্ড একা।

কোন দিন যদি ঠোঁটের কোণায় হাসি আনতে ভুলে যাই, ওরা না কেমন অদ্ভুত চোখে তাকায়। তুমি ঠিকই বুঝেছিলে….যেন নিজের করে আর চাই না কাউকে আজকাল। তুমি যেমনটা বলতে তেমন কতো যন্ত্র দেখি আমার চারপাশে। কিন্ত, জানো?তাদের দেখতে অবিকল মানুষের মতো দেখতে। ওরা গড়লে হাসে না, ভাঙলে কাঁদে না,এমনকি নিজের মানুষটাকে হারিয়ে ফেললেও শোক প্রকাশ করে না।শুনেছি ওরা নাকি রাতের বেলায় বালিশ ভিজায়! আর খাতার পাতায় ইচ্ছে মত আঁকাআঁকি করে! তুমি – আমি এসব বুঝিনি। আসলেই তুমি জানতে কি করে অভিমানের অসুখ সারিয়ে তুলতে হয়। আমাদের যখন অশান্তি হতো আমরা মুহূর্তের জন্য একে অপরের চোখে নীল বিষ হয়ে উঠতাম। তারপর আদর নামক চাদরের তলায় এসে আমরা সবটা ভুলে যেতাম নিমিষে।

জানো?
এই দূষণ ঘেরা শহরে আমার একটা নতুন বন্ধু হয়েছে। সকলে ওর নাম দিয়েছে “Depression”, যদিওবা আমি একে “মনখারাপ ” বলেই চিনি। আচ্ছা, নয় নয় করে তোমারতো এই শহরে অনেকদিনই হলো। এই যাবত তোমার কেউ প্রিয় বন্ধু হয়ে ওঠেনি?

-নুসরাত জাহান, আইন বিভাগ, কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনির্ভাসিটি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •