ফাইল ছবি
মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা সদর হাসপাতালে নির্মিত ১০ বেডের পরিপূর্ণ অত্যাধুনিক ICU (ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট-Intencive care unit) এবং ৮ বেডের HDU (হাই ডিপেডন্সি ইউনিট-High dependency unit) আগামী ২০জুন শনিবার উদ্বোধন করা হচ্ছে। একইদিন থেকে থেকে ICU এবং HDU এর প্রয়োজনীয়তা সম্পন্ন রোগীদের সেখানে রেখে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে। কক্সবাজার জেলাবাসীর বহু প্রতিক্ষীত নতুন স্থাপিত এ ২টি ইউনিট প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে উদ্বোধন করবেন কক্সবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও সদর হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি সাইমুম সরওয়ার কমল। বিষয়টি কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ও উপপরিচালক ডা. মোঃ মহিউদ্দিন সিবিএন-কে জানিয়েছেন।

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে স্থাপিত ১০বেডের পরিপূর্ণ অত্যাধুনিক ICU এবং ৮ বেডের HDU কাজে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত একটি সুত্র সিবিএন-কে জানিয়েছেন, জাতিসংঘের উদ্বাস্তু বিষয়ক হাই কমিশন (UNHCR)-৩৫ কোটি টাকারও অধিক ব্যয়ে অত্যাধুনিক বহুমুখী সুবিধা সম্বলিত এই ১৮ বেডের ICU এবং HDU নির্মাণ করেছে। ইতিমধ্যে অবকাঠামো নির্মাণ কাজ প্রায় ৯৯% সম্পন্ন হয়েছে বলে সুত্রটি জানিয়েছে।

অত্যাধুনিক সুবিধা সম্বলিত ICU-HDU এর সকল চিকিৎসক, নার্স, মিডওয়াইফ, ওয়ার্ডবয়, স্বাস্থ্যকর্মী, এ্যাম্বুলেন্স সহ মাসিক সকল ব্যয়ভার UNHCR কর্তৃপক্ষ বহন করবেন। ইতিমধ্যে সকল জনবলও নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ১৮বেডের ICU এবং HDU-তে ভেন্টিলেটর সার্ভিসের জন্য অক্সিজেন প্ল্যান্টও একইসাথে নির্মান করা হয়েছে। সুপার ডা. মোঃ মহিউদ্দিন আরো জানান, কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে আগে কোন ICU ছিলোনা। শুধুমাত্র ২ বেডের অসম্পূর্ণ HDU ছিলো।

বিশ্বস্ত এই সুত্র মতে, কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের উদ্বোধন হতে যাওয়া ICU এবং HDU এর চিকিৎসক, নার্স, টেকনিশিয়ান, ক্লিনার, মিডওয়াইফ অন্যান্য স্বাস্থ্য কর্মী সহ মাসিক ৩৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ব্যয় হতে পারে। ICU এবং HDU এর প্রতিমাসের এই অতিরিক্ত ব্যয়ও নিয়মিত UNHCR কর্তৃপক্ষ বহন করবেন।

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে চালু হতে যাওয়া ICU এবং HDU- তেই প্রথম ভেন্টিলেটর সুবিধা থাকবে। যা জেলার কোন সরকারি বেসরকারি হাসপাতালে ছিলোনা। করোনা ভাইরাস আক্রান্ত মুমূর্ষু রোগীর জন্য এই অক্সিজেন ভেন্টিলেটর সুবিধা জন্য খুব বেশী প্রয়োজন। জেলা সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ও উপ পরিচালক ডা. মো. মহিউদ্দিন জানান, জেলা পর্যায়ের সরকারি হাসপাতালে এই প্রথম ICU এবং HDU ইউনিট চালু হচ্ছে। কক্সবাজার জেলাবাসীর দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবি সদর হাসপাতালে শনিবার থেকে ICU এবং HDU চালু হলে অক্সিজেন সিস্যুরেশন কমে যাওয়া করোনা আক্রান্ত রোগী আর খুব একটা চট্টগ্রাম, ঢাকা দৌঁড়াতে হবেনা।

আগামী শনিবার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে UNHCR এর সিনিয়র অপারেশন অফিসার হিনাকো টকি, কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকতা, পুলিশ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকতা, সিভিল সার্জন ডা. মো. মাহবুবুর রহমান, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. অনুপম বড়ুয়া, জেলা বিএমএ’র সাধারণ সম্পাদক ডা. মাহবুবুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •