নিজস্ব প্রতিবেদক:
কক্সবাজার শহরের কলাতলী সৈকত পাড়া এলাকায় খালেদা বেগম (২৫) নামে এক নারীকে বেধড়ক মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। কাপড় সেলাইয়ে ভুল করার প্রতিবাদ করার দর্জি মহিলা ও তার স্বামী মিলে এই মারধর করেছে। গত ১২জুন এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় থানা অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, কলাতলী সৈকত পাড়ায় ভাড়া বাসায় বসবাসরত আবদুল মান্নানের স্ত্রী খালেদা বেগম (২৫) তার পাশের বাসায় বসবাস করা সাইফুল ইসলামের স্ত্রী শামু আকতারের কাছে একটি কাপড় সেলাই করতে দেয়। কিন্তু তাতে ভুল করে কাপড়টি নষ্ট ফেলে শামু আকতার। দ্বিতীয়বার কাপড় কিনে ফের সেলাই করার জন্য দেয়া হয়। দ্বিতীয়বারও ভুল করে কাপড়টি নষ্ট ফেলা হয়। তা বলায় উল্টো শামু আকতার খালেদা বেগমের উপর রেগে যায়। এই নিয়ে কথা কাটাকটি হওয়ার এক পর্যায়ে নিজ বাড়িতে চলে আসে খালেদা বেগম। কিন্তু পরক্ষণে শামু আকতারের স্বামী সাইফুল বাড়ি আসলে তিনি ও শামু আকতার মিলে খালেদার বাসা যায়। সে সময় বাসায় ছিলো না খালেদা বেগমের স্বামী আবদুল মান্নান। সে সুযোগে শামু আকতার ও তার স্বামী সাইফুল ইসলাম মিলে খালেদা বেগমকে এলোপাতাড়ি মারধর করে। এতে শরীরের বিভিন্ন অংশে জখম হয়ে গুরুতর আহত হয় খালেদা বেগম। এসময় শামু আকতার ও তার স্বামী সাইফুল ইসলাম খালেদা বেগমের বাড়িতে ব্যাপক ভাংচুর চালায়। চলে আসার সময় বাড়িতে আবদুল মান্নানের কাঁঠাল ব্যবসার ৪০ হাজার টাকা ও আধাভরি ওজনের স্বর্ণেল কানফুল লুট করে নিয়ে যায়।

হামলা খবর পেয়ে বাড়ি গিয়ে খালেদা বেগমকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে ভর্তি করে আহত খালেদা বেগমকে চিকিৎসা দেয়া হয়। এই ঘটনায় আবদুল মান্নান বাদি হয়ে শামু আকতার ও তার স্বামী সাইফুল ইসলামের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •