ফারুক আহমদ, উখিয়া:

চারদিকে দুঃসংবাদের মধ্যে কিছু কিছু প্রাপ্তি বাঁচার স্বপ্ন দেখার পাশাপাশি কাজে আরো অনুপ্রেরণা দেয়। উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আজ একটি প্রাপ্তির দিন। করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে ৩ জন রোগীকে সম্পূর্ণ সুস্থ ভাবে বাসায় পাঠানো হয়েছে ।জীবনের ঝুঁকি মাথায় নিয়ে মানতার মহান ব্রতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদেরকে বাঁচতেে স্বপ্ন দেখিয়েছেন ডাক্তার, নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মী।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসায় সুস্হ হয়ে বাড়িতে ফিরে গেছেন তারা হলেন, আরিফুল হাসান আসিফ, সাজ্জাদ হোসেন ও রাজু আহমেদ। করোনায় সুস্থ হওয়া রোগীদেরকে রবিবার (১৪ জুন) ফুলেল শুভেচছা জানিয়ে হাসি মুখে বিদায় দেন আইসোলেশন ওয়ার্ডের দায়িত্বরত ডাক্তার ও হাসপাতালের নবাগত মেডিকেল অফিসার ডাক্তার মহি উদ্দিন মহিন।

করোনা রোগীদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা দিয়ে সুস্থ করে বাড়িতে পাঠাতে পেরে ডাক্তার মহিন নিজেও আবেগ আপ্লুত। সুস্থ হওয়া রোগীর পরিবারের সদস্যদের সাথে ডাক্তার নার্স ও সাস্হকর্মীরাও আনন্দ ভাগাভাগি করেছেন।

আইসোলেশন ওয়ার্ডের কর্মরত ডাক্তার ও উখিয়ারই কৃতি সন্তান ডাক্তার মহি উদ্দিন মহিন এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সুযোগ্য কর্ণধার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার রঞ্জন বড়ুয়া রাজন স্যারের নেতৃত্বে আমরা সকল ডাক্তার এবং স্বাস্থ্য কর্মী একত্রিত ভাবে কাজ করছি। আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি কৃত সকল রোগীকে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য সেবা দানের পাশাপাশি মানসিক শক্তিদানের বিষয়টিকে প্রাধান্য দিয়ে আমরা সেবা দিয়ে যাচ্ছি। তিনজন রোগীই আমাদের হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন কভিড ১৯ পজিটিভি হয়ে । তাদের অনেকেরই বিভিন্ন ধরনের উপসর্গ ছিল।আমাদের নিয়মিত সেবাদান ,তাদের দৃঢ় মনোবল এবং সর্বোপরি উপরওয়ালার রহমতে তারা আজ করোনা মুক্ত।

ডাক্তার মহিন আরও বলেন করোনা অজেয় কোনো অসুখ নয়। করোনা আক্রান্ত হলে ভীতসন্ত্রস্ত না হয় চিকিৎসা নিন। আপনি বাসায় বসে চিকিৎসা নিতে পারেন অথবা হাসপাতালে ভর্তি হতে পারেন। তবে আমি বলব আক্রান্ত হওয়ার আগেই সচেতন হোন। স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলুন। এমন একটি দিন আসবে যখন কোন আইসোলেশন ওয়ার্ড থাকবে না।করোনা ভাইরাস চিরতরে নির্মূল হয়ে যাবে।মহান আল্লাহ আমাদের প্রাণভরে নিঃশ্বাস নেওয়ার সুযোগ দিবেন আবার ইনশাআল্লাহ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •