এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া :

চকরিয়া-পেকুয়া (কক্সবাজার-১) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ জাফর আলমের সুপারিশে প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনার ত্রাণ তহবিল থেকে ২০ লাখ দশ হাজার টাকার আর্থিক অনুদান পেয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীসহ অচ্ছ্বল ৩১ নারী-পুরুষ। চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলার বাসিন্দা উপকারভোগী এসব নারী-পুরুষ এবং পরিবারবর্গের হাতে অনুদানের চেক আনুষ্ঠানিকভাবে বিতরণ করেছেন সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম। শুক্রবার ১২ জুন চকরিয়া পৌরসভার পালাকাটাস্থ বাসভবনে এমপি জাফর আলম সবার হাতে হাতে অনুদানের চেক তুলে দেন।

অনুদানের চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু, উজানটিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এটিএম শহীদুল ইসলাম চৌধুরী, চকরিয়া পৌরসভা ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আহমদ রেজা, এমপির পিএস আমিন চৌধুরী ও ব্যক্তিগত সহকারি সালেহ আহমদ সুজন, জালাল উদ্দিন মানিক প্রমুখ।

বিতরণ অনুষ্ঠানের শুরুতে এমপি জাফর আলম খুটাখালী কিশলয় বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক চৌধুরী মোঃ তৈয়বকে ৩ লাখ টাকার চেক তুলে দেন। তারপক্ষে চেক গ্রহন করেন সহ-ধর্মীনি ও পরিবার সদস্য। এরপর তিনি প্রধানমন্ত্রীর তহবিলের ২ লাখ টাকার চেক তুলে দেন চকরিয়া উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের বাসিন্দা মুক্তিযোদ্ধা মাহাবুবর রহমানের হাতে। একই সময়ে এমপি জাফর আলম এক লাখ টাকার অনুদানের চেক তুলে দেন চকরিয়া পৌরসভার ৮নম্বর ওয়ার্ডের কোচপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ক্যান্সার আক্রান্ত আবুল কাশেমের হাতে।

আবুল কাশেম। বয়স ষাটের কাছাকাছি। চকরিয়া পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের কোচপাড়া এলাকার মৃত আব্দুল খালেকের ছেলে। দীর্ঘদিন ধরে মরণ ব্যাধি ক্যান্সারে ভুগছিলেন। টাকার অভাবে ঠিক মতো চিকিৎসাও করাতে পারছিলেন না। ৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আহমদ রেজার মাধ্যমে এই খবরটি চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব জাফর আলমের কানে পৌঁছে। পরে ক্যান্সার আক্রান্ত আবুল কাশেমকে এমপি’র বাড়িতে ডেকে পাঠান। এরপর প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে সাহায্যেও জন্য আবেদন গ্রহণ করেন।

গত জানুয়ারী মাসে আবুল কাশেমের আবেদনটি প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে নিয়ে যান এমপি জাফর আলম। পরে প্রধানমন্ত্রী ফেব্রুয়ারী মাসে আবুল কাশেমের চিকিৎসার অনুদান হিসেবে দুই লাখ টাকার অনুদান প্রদান করেন। ১২ জুন শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিল থেকে দেয়া দুই লাখ টাকার চেকটি হস্তান্তর করেন।

অনুদান পেয়ে ক্যান্সার আক্রান্ত আবুল কাশেম বলেন, অভাবের কারণে চিকিৎসা করাতে পারছিলাম না। আমাদের এমপি মহোদয় আমার ক্যান্সার আক্রান্তের খবর পেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে দুই লাখ টাকা অনুদান এনে দিয়েছেন। আমি বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কণ্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও গরীবের বন্ধু আলহাজ্ব জাফর আলমের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

অনুদানের চেক বিতরণ শেষে আলহাজ্ব জাফর আলম এমপি বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবসময় অসহায়দের পাশে থেকেছেন। যেকোন সময় অসুস্থ রোগীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। আমি আবুল কাশেমের আবেদনটি প্রধানমন্ত্রী দপ্তরে জমা দেয়ার কিছুদিনের মধ্যে দুই লাখ টাকার অনুদান প্রদান করেছেন

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে এরকম চকরিয়া-পেকুয়ার অনেক অসুস্থ ও ক্যান্সার আক্রান্ত রোগিকে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও ক্যালণ তহবিলের টাকা হস্তান্তর করেছি। এ ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •