আবুল কালাম, চট্টগ্রাম:
চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সহসভাপতি লায়ন মোহাম্মদ কামাল উদ্দীনের মৃত্যুতে শোক জানানোর পাশাপািশ সরকারের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী আব্দুল্লাহ আল নোমান।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, করোনা রোগীদের চিকিৎসা নিয়ে সরকার অঘোষিতভাবে দ্বৈতনীতি গ্রহণ করেছে। প্রতিবছর প্রায় ৪৭ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব দেওয়া চট্টগ্রামের মানুষ আজ চিকিৎসা না পেয়ে নির্মমভাবে মৃত্যু বরণ করছে। সরকারের এমপি,মন্ত্রী ও সরকারি দলের নেতারা করোনা আক্রান্ত হলে তাদের কে সরকারি হেলিক্যাপ্টার ব্যবহার করে ঢাকায় নিয়ে গিয়ে উন্নত চিকিৎসা প্রদান করছে আর অন্যদিকে চট্টগ্রামের সাধারণ মানুষ চিকিৎসা পায় না। এটা চট্টগ্রামের প্রতি সরকারের বিমাতাসুলভ আচরণের বহিঃপ্রকাশ।

তিনি বলেন,সরকারে প্রতিনিধিত্বকারী চট্টগ্রামের মন্ত্রীরা চট্টগ্রামের মানুষ যাতে সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে নির্বিগ্নে করোনা চিকিৎসা পায় সে ব্যাপারে দৃশ্যমান কোন কার্যক্রম গ্রহন করতে পারেননি।

তিনি অারও বলেন, ১৯৯১ সালের ঘুর্ণিঝড় এবং পরবর্তী বিভিন্ন দুর্যোগকালীন সময়ে বিএনপি’র আমলে চট্টগ্রামের মানুষের জন্য একজন মন্ত্রীকে বিশেষ দায়িত্ব দিয়ে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী চিকিৎসা ও ত্রাণ তৎপরতা তদারকি করতেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে চট্টগ্রামের মানুষের প্রতি সরকার যথাযথ দায়িত্ব পালন করছে না। চট্টগ্রামে প্রতিদিন বহু মানুষ অসুস্থতা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হতে না পেরে,আইসিইউ সাপোর্ট না পেয়ে নির্মমভাবে মারা যাচ্ছেন।

এমতাবস্থায় চট্টগ্রামে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় গুরুতর অসুস্থ মানুষদের যথাযথ চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করা সহ ঔষধ,অক্সিজেন এবং করোনা প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদি ন্যায্যমূল্যে বিক্রি করার উদার্ত অাহ্বান জানাই।

বিবৃতিতে তিনি বলেন,বিএনপি নেতা কামাল উদ্দীন অত্যন্ত বিনয়ী ও মার্জিত রাজনীতিক ছিলেন। এছাড়া তিনি ছিলেন স্পষ্টবাদী ও সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য একজন দক্ষ সংগঠক।

তিনি মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

বৃহস্পতিবার (১১ জুন) সকালে আইসিইউ সাপোর্ট না পেয়ে মারা যান করনো আক্রান্ত বিএনপি নেতা লায়ন মোহাম্মদ কামাল উদ্দীন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •