মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে ১১ জুন বৃহস্পতিবার স্থাপিত হচ্ছে তৃতীয় পিসিআর (পলিমারি চেইন রি-এ্যাকশন) মেশিন। কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন সিবিএন-কে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জেলা প্রশাসক বলেন, কক্সবাজার মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটে আগে থেকেই একটি পিসিআর মেশিন ছিলো। সেই পিসিআর মেশিনটি করোনা ভাইরাসের স্যাম্পল টেস্ট করতে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়ে জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিবের কাছে জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মোঃ কামাল হোসেন পত্র দেন। জেলা প্রশাসকের প্রেরিত পত্রের প্রেক্ষিতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব জানান, একই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর অনুমোদন নিয়ে পিসিআর মেশিনটি কক্সবাজার মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট থেকে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজে নিয়ে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে। পরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব-মন্ত্রীর কাছ থেকে এ বিষয়ে অনুমোদন নেন।

জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন বলেন, বৃহস্পতিবার ১১ জুন কক্সবাজার মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের পিসিআর মেশিনটি স্থানান্তরের জন্য কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. অনুপম বড়ুয়াকে ইতিমধ্যে বলা হয়েছে। পিসিআর মেশিনটি স্থাপন করতে ৫/৬ দিন সময় লাগতে পারে। এরপর এই পিসিআর মেশিনটিতেও পুরোদমে করোনা ভাইরাসের স্যাম্পল টেস্ট শুরু করা হবে।

কক্সবাজার মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের পিসিআর মেশিনটি কক্সবাজার মেডিকেল কলেজে স্থাপন করা হলে এটি হবে সেখানে স্থাপিত তৃতীয় পিসিআর মেশিন।এখন সেখানে চালু থাকা ২টি পিসিআর মেশিনে গত ২ দিন ধরে প্রতিদিন ৪৭৭টি (কমবেশি) স্যাম্পল টেস্ট করা হয়। তৃতীয় পিসিআর মেশিনটি চালু হলে প্রতিদিন কমপক্ষে ৬০০ স্যাম্পল টেস্ট করা যাবে বলে জানিয়েছেন, একজন প্যাথলজি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক। তখন কক্সবাজার মেডিকেল কলেজে স্যাম্পল জট কিছুটা হলেও কমে আসবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •