লকডাউন ডায়েরি -৪

প্রকাশ: ৯ জুন, ২০২০ ০১:২১ , আপডেট: ৯ জুন, ২০২০ ০১:৫৩

পড়া যাবে: [rt_reading_time] মিনিটে


পরিচিত ঘনিষ্ট অনেকেরই অসুস্থতার খবর পাচ্ছি। উপসর্গ একই রকম। সর্দিজ্বর গলা ব্যথা। রাজনৈতিক সহকর্মী সাবেক কাউন্সিলর রফিক ভাই, বন্ধু এড কাউসার, সাংবাদিক নেতা স্নেহের আনছার ,সৌদি প্রবাসী স্নেহের ছৈয়দুল হক, শিল্পপতি রহিম চৌধুরীসহ আরো অনেকের । মহান আল্লাহ সবাইকে শেফা দান করুন। আমিন।
বরণ্য চিকিৎসক ডাক্তার আবুবক্কর সিদ্দিক বার্ধক্য জনিত কারনে সদ্য ইন্তেকাল করেছেন ( ইন্নালিল্লাহ )।তিনি আমার শৈশব কৈশোরের অনেক স্মৃতির সাথে জড়িয়ে আছেন । কক্সবাজার শহরে ৭০/৮০দশকে চিকিৎসক ছিল হাতেগোনা কয়েকজন ।মরহুম ডাক্তার আব্দুল খালেক ফরাজী এবং সদ্য প্রায়ত ডাক্তার আবু বক্কর সিদ্দিক তাঁহাদের মধ্যে অন্যতম । সেকালে চেম্বারে রোগী দেখা ছাড়াও চলাচলে অক্ষম অসুস্থদের বাড়ীতে গিয়ে সেবা দিতেন এই দুই জন বরণ্য চিকিৎসক । শ্রদ্ধেয় ডাক্তার ফরাজীএবং ডাক্তার আবু বক্কর সিদ্ধিকীর সাথে আমার মরহুম পিতার ভালই সখ্যতা ছিল । দুই জনে সে সময়ে আমাদের পারিবারিক চিকিৎসক ছিলেন।  আমরা ভাই বোনেরা প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার পুর্ব পর্যন্ত নিয়মিত মরহুম শ্রদ্ধেয় ডাক্তার আবু বক্কর সিদ্দিক সাহেবের চিকিত্সা নিতাম । তিনি নিজ হাতে আমাকে ইনজেকশন দিতেন । ছোটবেলায় উনাকে খুব ভয় পেতাম ।সময় দ্রুত চলে যায় । আমরাও শিশু থেকে পৌঢ হয়েছি ।পরবত্তীতে আমার ফুফাতো ভাই বিশিষ্ট মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার কফিল উদ্দিনের শশুর হওয়ার সুবাদে আরও ঘনিস্ট সম্পর্কের সুযোগ হয় । মানব সেবার শ্রেষ্ঠ পেশা চিকিৎসক হিসাবে তিনি কক্সবাজারবাসীকে দীর্ঘদিন সেবা দিয়ে গেছেন । মরহুম ডাক্তার আবু বক্কর সিদ্দিক চাচাকে আল্লাহ জান্নাতবাসী করুন । আমিন ।

লুৎফুর রহমান কাজল
জুন ০৯, ২০২০
নিরিবিলি

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •