চকরিয়া প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের চকরিয়া পেকুয়ায় করোনা সংকটে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় নিন্ম আয়ের ২২ হাজার পরিবারকে বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচী (ডাব্লিউএফপি) খাদ্য সহায়তা দেওয়া শুরু হয়েছে। কোভিড- ১৯ সংক্রমন প্রতিরোধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ডাব্লিউ এফপি কর্তৃক স্থানীয় জনগোষ্ঠীর জন্য স্থানীয় সরকারকে সম্পৃক্ত করে এ কর্মসূচীটি বাস্তবায়ন করছে চকরিয়ার বেসরকারী সংস্থা এসএআরপিভি (সোসাল এ্যাসিস্ট্যান্স এন্ড রিহ্যাবিলিটেশন ফর দি ফিজিক্যালি ভালনারেবল)।

সোমবার দুপুর ১১টায় কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন এক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন। এই ভিডিও কনফারেন্সে কক্সবাজার-১(চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের এমপি জাফর আলম বিএ(অনার্স)এমপি তার নিজ বাসভবন থেকে যুক্ত ছিলেন। চকরিয়া ও পেকুয়ায় এ কর্মসূচীর উদ্বোধনীতে উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী, চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শামশুল তাবরীজ, পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইকা শাহাদাত, চকরিয়া পৌর মেয়র আলমগীর চৌধুরী, চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ হাবিবুর রহমান, এসএআরপিভি’র আঞ্চলিক পরিচালক কাজী মাকসুদুল আলম মুহিত, ডাব্লিউএফপি’র প্রতিনিধিবৃন্দ, চকরিয়ার ভাইস চেয়ারম্যান মুকছুদুল হক ছুট্টু, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম, চকরিয়ার ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন হক জেসি চৌধুরী, ইউপি চেয়ারম্যন শওকত ওসমান, জসিম উদ্দিন বিএ, গোলাম মোস্তফা কাইছার, দিদারুল হক সিকদার, এসএআরপিভি’র ইয়াছমিন সুলতানা ও ডাব্লিউএফপি’র ইমরান প্রমুখ। এদিন দুপুরে চকরিয়া ১৫জন উপকারীভোগী ও পেকুয়া ১৫জন উপকারভোগীকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করে বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। এরপর মঙ্গলবার থেকে প্রতি ইউনিয়নে গিয়ে পর্যায়ক্রমে ওই ২২ হাজার পরিবারের মাঝে এ খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হবে।
এসএআরপিভি’র আঞ্চলিক পরিচালক কাজী মাকসুদুল আলম মুহিত জানান; এ কর্মসুচীর আওতায় করোনা সংকটে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় নিন্ম আয়ের চকরিয়া পেকুয়ার ২২ হাজার পরিবারকে এ খাদ্য সহায়তা দেয়া হবে। এ কর্মসূচীর আওতায় এসেছে চকরিয়া উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ১৮ ইউনিয়নের ১৬ হাজার ৫শত পরিবার এবং পেকুয়ার ৭ ইউনিয়নের ৫ হাজার ৫শত পরিবার। এ কর্মসূচীর আওতায় চার মাসে চার কিস্তিতে চকরিয়ার ১৬ হাজার ৫শত পরিবারের প্রতি পরিবার পাবেন ৬০ কেজি ভাল মানের চাল, ৫ কেজি হাই এনার্জি বিস্কুট ও নগদ ৪ হাজার ৫শত টাকা। পেকুয়ায় ৫ হাজার ৫শত পরিবার চার কিস্তিতে পাবেন ৬০ কেজি ভাল মানের চাল ও নগদ ৪ হাজার ৫শত টাকা। পেকুয়ায় বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচী (ডাব্লিউএফপি)’র আওতায় পুষ্টি কার্যক্রম কর্মসূচীতে হাই এনার্জি বিস্কুট দেওয়া হচ্ছে। তাই খাদ্য সহায়তা কর্মসূচীতে পেকুয়ায় এই বিস্কুট দেয়া হচ্ছে না। #

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •