বলরাম দাশ অনুপম :

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবেও তৈরি হয়েছে নমুনা জট। ফলে নমুনা সংগ্রহের অনেকদিন পর মিলছে ফলাফল।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সিভিল সার্জন ডা. মাহাবুবুর রহমান। তিনি শনিবার সন্ধ্যায় মুঠোফোনে বলেন- কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে ২ হাজার নমুনা জমা আছে। তাই জেলার অনেকে নমুনা পরীক্ষা দিয়েও রিপোর্ট পেতে সময় লাগছে।

আর দ্রুত রিপোর্ট পেতে করণীয় কি সেটাও জানা নেই এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তার। তিনি জানান, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে বর্তমানে প্রায় ২ হাজারের বেশি নমুনা পরীক্ষার জন্য জমা আছে। ল্যাবে আগে দৈনিক ৭০/৮০ টি নমুনা পরীক্ষা করা হলেও বর্তমানে প্রায় তিনশোর কাছাকাছি নমুনা পরীক্ষা করে রিপোর্ট দেওয়া হয়। তারপরও ২ হাজার নমুনা জমা পড়ে আছে।

সেজন্য রিপোর্ট পেতে সপ্তাহ বা তার চেয়ে বেশি সময় লাগছে। এতে আমাদের করণীয় কিছুই নেই। মূলত সংক্রমণ বেড়ে যাওয়াতে এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

সিভিল সার্জন জানান- কক্সবাজার জেলার পার্শ্ববর্তী জেলা বান্দরবান, চট্টগ্রামের লোহাগাড়া, সাতকানিয়া উপজেলার নমুনা এখানে পরীক্ষা করা হচ্ছে। এটাও সরকারি নির্দেশনা। এখানে আমাদের কোন হাত নেই।

প্রসঙ্গত-গত ৪ জুন থেকে নানা কারনে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে করোনার নমুনা পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •