সিবিএন ডেস্ক:
নেত্রকোনার মদন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বৃহস্পতিবার (৪ জুন) রাতে করোনা উপসর্গ নিয়ে সন্দু মিয়া (৬০) নামে এক রোগীর মৃত্যু হয়। মারা যাওয়ার কিছুক্ষণ পরেই লাশ রেখে পালিয়ে যায় স্বজনরা। শুক্রবার (৫ জুন) দুপুর ১২টা পর্যন্ত লাশ নিতে কেই আসেনি।

সন্দু মিয়ার লাশ হাসপাতালের পুরুষ ওয়ার্ডের ১৪ নম্বর সিটে পড়ে ছিল। নিহত সন্দু মিয়া আটপাড়া উপজেলার সুখারী ইউনিয়নের দেবাদ্বর গ্রামে মৃত রুস্তম আলীর ছেলে।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার বিকালে ওই রোগীকে মদন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসকরা তাকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। পরিবারের অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে সেখানে নেওয়া সম্ভব হয়নি। পরে রাত ১২ টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

মদন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. সজিব সাইফুল্লাহ জানান, রোগীর শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। অবস্থা খারাপ দেখে তাকে ময়মনসিংহে যেতে বলা হয়। কিন্তু পরিবারের লোকজন তাকে নিয়ে যায়নি। রাতে হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুর পর থেকে লাশ হাসপাতালেই পড়ে আছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •