বিদেশ ডেস্ক:
লকডাউনের সময় ভিসা নীতিমালা লঙ্ঘন করে ভারতে অবস্থান করায় ২ হাজার ৫৫০ বিদেশি তাবলিগ জামাত সদস্যকে নিষিদ্ধ-তালিকাভুক্ত করেছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়ার (পিটিআই) প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, আগামী ১০ বছর তাদেরকে ভারতে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

গত ১ মার্চ দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজ মসজিদে তাবলিগ জামাতের একটি ধর্মীয় সমাবেশ শুরু হয়। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে ২৪ মার্চ ভারত জুড়ে লকডাউন শুরুর সময়ও সেখানে বিভিন্ন দেশের প্রায় দেড় হাজার মানুষের অবস্থান ছিলো। মারকাজ নিজামুদ্দিনে অবস্থানরতদের অনেকের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ার পর মওলানা সা’দসহ তাবলিগ নেতাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা অমান্যের অভিযোগে মামলা হয়।

এপ্রিল মাসেই ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তরফে তাবলিগ জামাতের ৯৬০ সদস্যকে তালিকাভুক্ত করে তাদের ভিসা নিষিদ্ধ করা হয়। বৃহস্পতিবার ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বিভিন্ন রাজ্য সরকারের কাছে দেশজুড়ে মসজিদ এবং ধর্মীয় মাদ্রাসায় অবৈধভাবে বসবাসরত বিদেশিদের বিবরণ সংগ্রহের পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় ২৫৫০ জনকে নিষিদ্ধ করার নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে। সরকারি নির্দেশ উপেক্ষা করে মাওলানা সাদের নেতৃত্বে তবলিগ জামাতের ধর্মীয় জমায়েতে যোগ দেওয়ার জেরেই এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

হিন্দুস্থান টাইমস-এর এক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, মাওলানা সাদ তার ছেলেসহ অনেকেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের নজরে রয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •