বিশেষ প্রতিবেদক:
সোমবার (১ জুন) করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন কক্সবাজার শহরের নুনিয়াছড়া টগবগে যুবক ও তরুণ ব্যবসায়ী মুহাম্মদ করিম। তিনি কক্সবাজার পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের মধ্যম নুনিয়ারছড়ার শামসুল আলম প্রকাশ শামসু মাঝির পুত্র।

সোমবার (১ জুন) সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। করোনার উপসর্গ নিয়ে দুই দিন আগে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওই দিনই তার স্যাম্পল সংগ্রহ করা হয়। এখনো রিপোর্ট প্রকাশ হয়নি।

তবে তার মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে! প্রশ্নটা হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা নিয়ে। অভিযোগ উঠেছে, যুবক মুহাম্মদ করিম হাসপাতালে ভর্তি করালেও তিনি সেখানে যথাযথ চিকিৎসা পায়নি। এমনটি মৃত্যুর মুহূর্তেও ‘শেষ প্রয়োজন’ অক্সিজেন ও আইসিও দেয়নি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অক্সিজেন না দেয়া বাইর থেকে কিনে এনে মুহাম্মদ করিমকে অক্সিজেন দিতে হয়েছে। কিন্তু অক্সিজেন সংগ্রহের যে সময় অতিক্রম হয়েছে ততক্ষণে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে এই যুবক। এমন অভিযোগ তার আত্মীয়দের। এমনটি দুইদিন চিকিৎসাধীন থাকায় অবস্থায়ও সঠিক চিকিৎসা পায়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। এই নিয়ে তার আত্মীয়-স্বজনসহ সর্বমহলে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

মুহাম্মদ করিম চিকিৎসার অবহেলায় মৃত্যু নিয়ে ফেসবুকে এক আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন কক্সবাজার জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল হক সোহেল। তিনি তার স্ট্যাটাসে সরাসরি প্রশ্ন রেখেছেন মুহাম্মদ করিমমের মৃত্যুর দায়ভার কার।
নিচে শহীদুল হক সোহেলের স্ট্যাটাসটি হুবুহু তুলে ধরা হলো-

এই মৃত্যুর দায় কে নিবেন- হাসপাতাল ব্যবস্থপনা কমিটি, হাসপাতাল সুপার, বিএমএ নাকি স্বাচিপ? এই তরতাজা তরুণটির মৃত্যুর দায়ভার কে নিবেন? তাঁর কথাই গতকালকে (রোববার) বলেছিলাম। তাঁর শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে তাক আইসিইউতে নেওয়া বা অক্সিজেন দেওয়ার ব্যবস্থা করার অনুরোধ জানায়। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে হাসপাতালে আইসিইউ এবং অক্সিজেন নাই বলে অপারগতা প্রকাশ করেন। যার ফলশ্রুতিতে আজ সকালে মুহাম্মদ মারা যায়। মুহাম্মদ এর মৃত্যুর দায়ভার কে নিবেন? আর কত মৃত্যুর মিছিল আপনাদের মধ্যে মনুষ্যত্ববোধ জাগ্রত করবে। কক্সবাজার সদর হাসপাতালকে এই রাহুর কবল থেকে রক্ষা করুন। না হয় আপনাদের এই দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনার বিরুদ্ধে আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর যেতে বাধ্য থাকবো। জনগণের টেক্স দিয়ে আপনাদের পরিবার চলে আর সেই জনগণকেই আজ বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুকে বরণ করে নিতে হচ্ছে! কোথায় গেলেন কক্সবাজার বিএমএ, স্বাসিপসহ সদর হসপিটাল ব্যবস্থাপনা কমিটি? দায়িত্ব পালন করতে না পারলে দায়িত্ব ছেড়ে দিন। তারপরও এই মুনাফালোভী কর্মকান্ডের মাধ্যমে জনগণের জীবন নিয়ে খেলা করে সরকারের সব অর্জনকে বিনষ্ট করে দিয়েন না। জনগণকে সাথে নিয়ে যুব সমাজ ক্ষ্যাপলে কেউ পালাবার পথ পাবেন না।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •