আতিকুর রহমান মানিক:
বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক) কক্সবাজার অফিসের অধীনে একটানা ২৩ বছর চাকুরির পর ব্রাহ্মণবাড়িয়া বদলী হলেন মোঃ তাজুল ইসলাম লবণ।

তিনি চকরিয়া দরবেশকাটা লবণকেন্দ্রের সমন্বয় কমকর্তা ছিলেন।

গত ১০ মে বিসিকের সচিব মোস্তাক আহমেদ স্বাক্ষরিত অফিস আদেশে তাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শিল্প সহায়ক কেন্দ্রের সহকারী হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা হিসাবে বদলী করা হয়েছে।

এরই প্রেক্ষিতে গত ২৭ মে বর্তমান কর্মস্থল থেকে মোঃ তাজুল ইসলামকে অব্যাহতি প্রদান করেছেন বিসিক কক্সবাজারের উপ-মহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) মুহাম্মদ হাফিজুর রহমান।

একই স্থানে দীর্ঘদিন চাকুরির সুবাদে বেপরোয়া হয়ে উঠেন তিনি। সরকারী দায়িত্ব পালনে অবহেলা, কর্মস্থলে অনুপস্থিতিসহ বিবিধ অনিয়মের অভিযোগ উঠে তার বিরুদ্ধে।

বিসিক অফিস সূত্রে জানা যায়, লবণ উৎপাদন ভরা মৌসুমে গত চৈত্র ও বৈশাখ মাসে অফিসে অনুপস্থিত ছিলেন তাজুল। এতে চকরিয়ার অন্যতম লবন উৎপাদন এলাকা ইলিশিয়া, দরবেশ কাটা ও বদরখালীসহ বিস্তীর্ণ এলাকায় মাঠপর্যায়ে উৎপাদিত লবনের সঠিক তথ্য ও পরিসংখ্যাণ সংগ্রহে বিঘ্ন সৃষ্টি হয়। উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে অবশেষে অভিযুক্ত তাজুলকে বদলী করা হয়।

বিসিক কক্সবাজারের উপ-মহাব্যবস্থাপক মুহাম্মদ হাফিজুর রহমান জানান, দরবেশ কাটা লবণ কেন্দ্রের সমন্বয় কর্মকর্তা মোঃ তাজুল ইসলামকে উর্ধতন কর্তৃপক্ষ ব্রাহ্মনবাড়িয়ায় বদলী করেন। সেই আদেশের আলোকে কক্সবাজার থেকে তাকে গত ২৭ মে অব্যাহতিপত্র প্রদান করা হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী তিনি নতুন কর্মস্থলে যোগদান করবেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •