সিবিএন ডেস্ক : দক্ষিণ চট্টগ্রাম পটিয়ায় অবস্থিত ১৫ আনসার ব্যাটালিয়ন চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে করোনা মোকাবেলায় দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। এ বাহিনীর সদস্যদের জন্য আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর মহাপরিচালক প্রদত্ত মাস্ক, পিপিই, ও হ্যান্ড সেনিটাইজার এবং দেশের অন্যতম শীর্ষ শিল্প প্রতিষ্টান মোস্তফা গ্রুপ প্রদত্ত পিপিই, হ্যান্ড সেনিটাইজার ও জীবনুনাশক সাবান হস্তান্তর করা হয়েছে। ১৫ আনসার ব্যাটালিয়ন সদর দপ্তর প্রাঙ্গনে এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার দুপুরে আয়োজিত এক অনুষ্টানে এ সুরক্ষা সামগ্রী সদস্যদের মাঝে তুলে দেন ১৫ আনসার ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এ এস এম আজিম উদ্দিন। এতে বক্তব্য রাখেন, বিএমএসএফ চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সভাপতি ও পটিয়া প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক আবদুল হাকিম রানা। অনুষ্টান সঞ্চালনায় ছিলেন কোম্পানী কমান্ডার মো: সাব্বির হোসেন।
এ সময় ১৫ আনসার ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক এস এম আজিম উদ্দিন বলেন, আনসার বাহিনীর সদস্যরা স্বাধীনতা যুদ্ধ সহ দেশের যে কোন দূর্যোগ মোকাবেলায় সন্মুখযোদ্ধা হিসেবে অংশ নিয়ে সাফল্যের স্বাক্ষর রেখেছে। বর্তমানে বৈশ্বিক মহামারি করোনা যুদ্ধে ও এ বাহিনী ফ্রন্ট ফাইটার হিসেবে সাধারণ মানুষের পাশে আছে, রাখছে জীবনবাজি। এ অবস্থায় আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল কাজী শরীফ কায়কোবাদ এনডিসি, পিএসসি,জি প্রতিটি সদস্যদের জন্য মাস্ক ও পিপিই প্রদান করায় তারা খুবই অনুপ্রানিত হয়েছে ।

একইদিনে চট্টগ্রামের স্বনামধন্য শিল্প গ্রুপ মোস্তফা গ্রুপ চট্টগ্রামের পক্ষ থেকে ১৫ আনসার ব্যাটালিয়নের জন্য করোনা মোকাবিলায় সবচেয়ে অপরিহার্য সুরক্ষা সামগ্রী পিপিই উপহার হিসেবে প্রদান করা হয়। অধিনায়কের হাতে এ পিপিই হস্তান্তর করেন কোম্পানীর পরিচালক মাশফিকুর রহমান । ২৮ মে ব্যটালিয়ন সদর দপ্তরে এ অনুষ্টানে মহাপরিচালক প্রদত্ত মাস্ক, স্যানিটাইজার, পিপিই , গ্লাভস , ফেইসশিল্ড , সানগ্লাস , জীবানুনাশক স্প্রে, সেভলন সাবান সহ সকল সুরক্ষা সামগ্রী ব্যাটালিয়নের আভিযানিক সদস্য, আরপি, মেডিকেল সহকারী ও কুইক রেসপন্স টিম সদস্যের মাঝে বিতরন করা হয়।
ব্যাটালিয়নের সদস্যরা পর্যাপ্ত সুরক্ষা সামগ্রী পেয়ে মহাপরিচালকের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন । পাশাপাশি তারা মোস্তফা গ্রুপের প্রতি ও ধন্যবাদ জানিয়েছেন বলে উদ্ধৃতি দিয়ে অধিনায়ক এ এস এম আজিম উদ্দিন বলেন, করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়ে অধিক গুরুত্বে কথা বলা হলে ও সবর্ক্ষেত্রে তা অসচেতন মানুষেরা মেনে না চলায় সারা দেশে করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। যা সামনের সময়ে মারাতœক পরিণতি বয়ে আনতে পারে। তাই ১৫ আনসার ব্যাটালিয়ন রুটিন ওর্য়াকের পাসাপাশি করোনা সচেতনতায় জনচেতনতা সৃষ্টির জন্য নৈতিক দায়িত্ব পালন করে প্রশংসিত হয়েছে। যা আগামীতে ও অব্যাহত থাকবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •