আহমেদ সৈকত

সারা দুনিয়াতে ভয়ানক এক বাজে অবস্থা চলছে , বলা হচ্ছে এভাবে করোনার সংক্রমণ চলতে থাকলে যতগুলো মানূষ করোনায় মারা যাবে তার চেয়ে বেশি মানুষ না খেয়ে মরবে । আমাদের মতো রাষ্ট্রগুলোর জন্য দু:সংবাদ আছে হয়ত অনেক , সবাই ভাল কথা , আশার কথা শোনতে চায় ,বাস্তবতা কি তাই ?

আমাদের দেশে গত ১০ -১৫ বছরে যে হারে জিনি সূচক বেড়েছে সেটার জন্য দায়ী করা হচ্ছে , একটি শক্তিশালী গোষ্ঠীকে যারা অনেক দ্রুত নানান ভাবে এ সম্পদের মালিক হয়েছে । করোনার এ অবস্থায় এত গুলো মিলিয়নার কোথায় গেলেন ? সংসদ সদস্যদের সম্পদের হিসাব নাই নিলাম, তাদের ছত্রছায়ায় যারা ব্যাংক–বীমা-কারখানার মালিক হয়েছেন ,তারা কোথায় গেলেন ? সরকার জনগণকে যে সাহায্য ‍দিচ্ছেন সেটা তো জনগণেরই টাকা , আর কিছূ ব্যবসায়ীরা কিছু টাকা প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে দিয়েছেন তারা নিশ্চয় সেটা অন্য কোনভাবে ফিরে পাবেন সে আশায় দিচ্ছেন ।কথা হল এখন আমরা ধনী গরীর সবাই বাজে অবস্থায় আছি , এটি আজ স্পষ্ট হয়েছে যে , ধনীরা বরং একটু বেশি ঝামেলায় পড়ছেন ।

আপনারা সবাই হয়তো পুঁজিবাদকে খূব ভালবাসেন , দরকার আছে এ ভালবাসার , পুজিঁবাদী প্রতিযোগীতা খুব ভাল ,অন্যের সাথে , আমার সাথে না ! আসলে উগ্র লাগামহীন পুজিঁবাদ ভয়ানক ব্যক্তি স্বাথবাদী ,তাই ধনীরা সেই এডাম স্মিথকে আর বিশ্বাস করতে পারছেন না । আজকালকার ধনীরা ভাবেন , তাদের ধন সম্পদ কোনভাবে কমে গেলে তাদের সামাজিক অবস্থান নিচে নেমে যাবে , হ্যাঁ , তাদের মাঝে আছে কে কত বেশী দানশীল – তালিকায় আসা সেটাও ।

বিল গেটসের কথা বলছিলাম , বহূ বছর তিনি এ তালিকায় প্রথম ছিলেন , হঠাৎ তিনি নিচে নেমে গেলেন ! কথা হলো সিলিকন ভ্যালীর মানূষগুলো একজন আরেক জনের সম্পদের হিসাব রাখেন – খুব স্বাভাবিক । করোনায় এ অবস্থায় বেজোস অনলাইন ব্যবসায় আরো লাভবান হয়েছেন , কথা হলো গেটসের কি হবে ! বেজোস প্রিয়তমাকে তালাক হিসাবে ৩৯ বিলিয়ন ডলার দিয়েছেন , সেটা পুষিয়ে নিয়েছেন এ সময়টাতে । গেটস ৫ বছর আগে টেড টকে বলেছিলেন , আমরা একটা মহামারীর জন্য প্রস্তুত না । কথা হলো , তিনি কি কোন মহামারী বিশেষজ্ঞ ? হয়তো এমন ধারণার জন্য মহান কিছু হবার দরকার নাই !

এখন কথা হলো , সারা দুনিয়াতে যখন মানূষ মারা যাচ্ছে লাখের পর লাখ গেটস তখন হাসি মুখে সিএনএন , টেড প্রতিটি স্থানে ক্রেডিট নিচ্ছেন তিনি ভবিষ্যত বাণী করেছিলেন সেটাই সঠিক হলো । কিছু দিন পর তার নিজের ইউটিউব চ্যানেলে বললেন আরো ১৮ মাস পর ভ্যাকসিন পাবে দুনিয়া । এদিকে ড. রশিদ বুত্তার নামে একজন চিকিৎসক গেটসের হাত আছে করোনার পেছনে ‘ বলায় সবার কাছে নিষিদ্ধ হতে লাগলেন , বিশেষ করে ইউটিউব তারা অনেক গুলো ভিডিও মুছে ফেলে । তিনি অন্যদের চ্যানেলে গিয়ে এ কথা গুলো জোর গলায় বলতে থাকেন , গেটস কি ভ্যাকসিন ,মহামারী এসব নিয়ে কাজ করতে চান , নাকি ভ্যাকসিন তৈরী করে রেখেছেন , দেড় বছর পর যখন কোটি কোটি মানূষ মারা যাবে , সারা দুনিয়ার রাষ্ট্রগুলো ভ্যাকসিন ভ্যাকসিন করে মরবে ,তখন তিনি মোটা অংকের টাকা নিয়ে ভ্যাকসিন সরবরাহ করবেন , খুব স্বাভাবিক কারণে তিনি চান পৃথিবীর জনসংখ্যা কমুক , তাই তিনি সারা দুনিয়াতে বিপূল পরিমাণ সম্পদ ব্যয় করেছেন এর পেছনে ।

ভাল কথা , উনি আজীবনের জন্য সেরা ধনী হবেন এবং এমন ভ্যাকসিন আমাদের সবার শরীরে দেবেন যেটা আমাদের রোবট বানিয়ে ফেলবে, যেটা ইসরাঈলী বুদ্ধিজীবী হারিরী বলেছেন কিছুদিন যাবত , আমরা কি চিন্তা করছি ,কি ভাবছি , কোথায় কি করছি সব তথ্য তিনি তার পছন্দের কোন রাষ্ট্র বা ব্যক্তির হাতে দিয়ে দেবেন ? নাকি তিনি নিজে সারাদুনিয়ার প্রথম ‘ডিজিটাল স্বৈরশাসক” হতে চান ? তিনি ভাল জানেন, পরিস্থিতি কোন অবস্থায় যায় জানি না কেউ ।

গেটসের বয়স ষাট পার হলো , তিনি কেন এমন নিষ্ঠুর কিছু করবেন ? ইটালির একজন সাংসদ গেটেসকে গ্রেফতারের কথা বলেছেন , কথা হলো , গেটস কে কেউ সম্পদ দান করায় কমে গেছে বলে হীনমন্যতায় ভুগিয়েছেন এবং তিনি মাইকোক্রসফট থেকে বিদায় নিলেন কিছুদিন হলো যাতে সেবামূলক কাজ করতে পারেন ? কেন ? তাকে এ অবস্থায় এনেছেন যিনি তিনি কি বেজোস ,জোকারবাগ, মাস্ক নাকি হেলু ? আমরা কেউ জানি না ।

আমরা অসহায় তৃতীয় বিশ্বের কিছু মানুষ , আমরা ধরেই নিলাম ,এ ধরায় আমাদের জান বা পেট কোন একটা শেষ হবে, আমরা ধরেই নিলাম করোনা সবার হবে , আগে আর পরে , যে বাঁচি বাঁচব যে মরি মরব ! আমরা মুখ্য সুখ্য মানুষ এত সব জঠিল সমীকরণ আমরা বোঝিনা , পেটে দু’মুঠো ভাত পেলে আমাদের চলে , আমরা আন্তর্জাতিক রাজনীতি বুঝিনা , দরকার না্ই  আমাদের , কারণ আমরা ভাল করেই জানি এদেশে বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫ বছর আইআর পড়ে ও আমরা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কিংবা কোন দূতাবাসের দারোয়ান হবার স্বপ্ন দেখলে পাপী হয়ে যাবো ।

আচ্ছা আপনি কত টাকা দেশে বস্তির মানূষগুলোকে শিক্ষিত করার পেছনে দিয়ছেন ? তারা শিক্ষিত হলেই জনসংখ্যা সমস্যা নিযে সচেতন হবেন । কাজেই আপনার সম্পদের কয়েকশ কোটি টাকা দেশের মানূষ কে শিক্ষিত করার পেছণে খরচ করুন ,তারপর গরীবদের দোষারোপ করূন , সারা পৃথিবীর করোনার অবস্থার কথা বলছিলাম , করোনা , ধরেই নিলাম , সিলিকন ভ্যালীর মানূষদের কারণে , আমাদের পুঁজিপতিরা কি করছেন ? কি করা উচিত তাদের ? এভাবে চলতে থাকলে বেসরকারী খাতে যারা আছেন তারা প্রথমে না খেয়ে মারা যাবেন , পরে সরকারী দায়িত্বে যারা আছেন তারা , কারণ বেসরকারী খাত অফিস , কাজ ছাড়া বেতন দিচ্ছেনা , সরকার দিচ্ছেন ,দিবেন হয়তো , কিন্ত কতদিন ? বিল গেটস যে বলছেন দেড় বছর , আদৌ কি সম্ভব ?

হয়তো , দেশের অভিভাবক বলতে পারেন সাংসদরা ১ বছরের মাসিক বেতন আমার তহবিলে দিন , যারা বিলিয়নার আছেন তারা কয়েক মিলিয়ন দিন , যারা ১০০ কোটির চেয়ে বেশি টাকার মালিক তারা ১০ কোটি , যারা ৫০ কোটির মালিক তারা ৫ কোটি দেন , যারা ২০ – ৩০ কোটির তারা ১ কোটি , যারা ১ কোটির মালিক তারা কয়েক লাখ দিন, দেখুন দেশের মানুষের টাকা বাংলাদেশ ব্যাংক কিংবা জাতীয় তহবিল থেকে না বরং বেসরকারী উদ্যোগে সকল ধনবান মানূষ এগিয়ে আসলে আমরা এ অবস্থা থেকে বেঁচে আসতে পারব , করোনা ইতোমধ্যে ধনী গরীব কাউকে বাঁচবিচার করবেনা ,করেনি । ধনীরা অন্য দেশে পালাতে ও পারবেন না, আবার দেশেও নিরাপদ নন যেখানে সবাই অনিরাপদ , কিম জং উন ও যেখানে বেরিয়ে এসেছেন ! আসুন ,মানবিক হই , পাশে এসে দাড়াঁই বিপদগ্রস্থদের জন্যে ।

লেখক : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সর্ম্পক বিভাগ থেকে ‘রোহিংগা সমস্যায় জাতিসংঘের ভুমিকা’ নিয়ে থিসিস করছেন ।

যোগাযোগ : ‍[email protected] ( 01838288956)

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •