বান্দরবান প্রতিনিধি :

পার্বত্য জেলা বান্দরবানে বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রামন। আর এই রোগে জেলার ৭টি উপজেলার মধ্যে ৫ টিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ জনে, সুস্থ হয়েছে ৯ জন বাড়ি ফিরে গেলেও এখনো আইসোলেশনে আছে ৯ জন এবং সদর হাসপাতালে করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছে ১ জন।

সোমবার (২৫ মে) সন্ধ্যায় সর্বশেষ করোনা প্রতিবেদনে করোনা পজেটিভ আসে বান্দরবান সদরের মেঘলায় অবস্থিত লুম্বিনী গার্মেন্টস এক কর্মী যার বয়স ৩২ বছর। বাড়ি কক্সবাজার জেলার ঈদগড়ে। গত ১০ মে লুম্বিনীতে যোগ দেয়।

অপর আক্রান্তের মধ্যে আছে বান্দরবান শহরের বালাঘাটার স্বর্ন মন্দির এলাকার আরেকজন তার বয়স ৩৬ বছর। তার বাড়ী চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলায়। সে কুহালং ইউনিয়ন রুট দিয়ে ব্যবসার জন্য বান্দরবানে প্রবেশ করে। সে করোনা পজেটিভ হওয়ার খবর পেয়ে স্বর্ণ মন্দির এলাকা থেকে পালিয়ে যায়। আর এই দুইজনের মাধ্যমে জেলা সদরে এই প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে।

সিভিল সার্জন ডা: অং সুই প্রু মারমা জানান, বান্দরবানে ২জন নতুন করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছে। একজন শহরের লুম্বিনী গার্মেন্টস কর্মীকে সদর হাসপাতালে আইসোলেশনে নিয়ে আনা হলেও স্বর্ণ মন্দির এলাকার রোগীটি পালিয়ে যাবার কারনে তার বিষয়ে পটিয়া উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •