বরইতলী ইউনিয়নের হিন্দু পাড়া সংযোগ সড়কে নতুন সেতু নির্মাণ কাজ উদ্ভোধন করছেন কমরউদ্দিন আহমদ।

এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া

ককক্সবাজার জেলা পরিষদের অর্থায়নে আড়াই লাখ টাকা বরাদ্দে অবশেষে চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নের ২নম্বর ওয়ার্ডের হিন্দু পাড়া সংযোগ সড়কে একটি নতুন সেতু নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়েছে। রবিবার ২৪ মে সকালে অনুকুলস্থলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সেতুর নির্মাণ কাজ উদ্ভোধন করেছেন জেলা পরিষদের সদস্য, কক্সবজার জেলা আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ও চট্রগ্রামস্থ চকরিয়া সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব লায়ন কমরউদ্দিন আহমদ। সেতুটি নির্মাণের ফলে বরইতলী ইউনিয়নের গ্রামীণ জনপদের আটটি গ্রামের অন্তত সাত হাজার মানুষ যাতাযাত ক্ষেত্রে সুফল পেতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদের ২নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার রামানন্দ দাশ।

সেতুটির নির্মাণ কাজ উদ্বোধন শেষে লায়ন কমরউদ্দিন আহমদ বলেছেন, এই সেতুটি বরইতলী ইউনিয়নের গ্রামীণ এলাকার আটটি গ্রামের অন্তত সাত হাজার মানুষের জন্য আমার পক্ষথেকে ঈদ উপহার। আমি এলাকা পরির্দশনে কথা দিয়েছিলাম, জেলা পরিষদের অর্থায়নে এখানে একটি সেতু নির্মাণ করে দেবো। কক্সবাজার জেলা পরিষদের সম্মাণিত চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী আমার আবেদনের প্রেক্ষিতে বরইতলী ইউনিয়নের ২নম্বর ওয়ার্ডের হিন্দু পাড়া সংযোগ সড়কে একটি নতুন সেতু নির্মাণে আড়াই লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন।

করোনার ভয়কে জয় করে বরইতলী হিন্দু পাড়া সংযোগ সড়কের নতুন সেতুর ঢালাই কাজের উদ্ভোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের সাইট পরিদর্শক সিরাজুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা সেলিম উল্লাহ বাহাদুর, বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদের ২নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রামানন্দ দাশ, সেলিম, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক ফরিদ, ঠিকাদার আজিজ উদ্দিন, স্থানীয় সমাজ সর্দার সামসুল হুদা, যুবলীগের কাইছার, ছাত্রলীগের দেলোয়ার হোছাইন প্রমুখ।

বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদের ২নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রামানন্দ দাশ বলেন, বরইতলী ইউনিয়নের মধ্যখানে গ্রামীণ এলাকার অন্তত আটটি গ্রামের সাত হাজার মানুষকে একটি সেতুর অভাবে চলাচলের ক্ষেত্রে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হতো। এলাকার কৃষকরা উৎপাদিত কৃষিপন্য অন্যত্র নিয়ে যেতে নানাধরণের সমস্যার সম্মুখীন হতো।

এমনকি একটি সেতু না থাকার কারণে গ্রামের আশপাশ এলাকার শত শত শিক্ষার্থী বিশেষ করে বর্ষাকালে বিদ্যালয়ে যেতে দুর্ভোগ পোহাতো। এতদিন সেখানে একটি বাঁশের সাঁকো থাকলেও বর্ষাকালে ঝুঁকি নিয়ে নড়বড়ে ওই বাঁশের সাঁকোর ওপর দিয়ে যাতায়াত করতে হতো শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীকে। এখন একটু দেরীতে হলেও এলাকাবাসির সেই অভাব মোচন করেছেন জেলা পরিষদের সদস্য লায়ন কমরউদ্দিন আহমদ। সেইজন্য আমরা এলাকাবাসির পক্ষথেকে তাকে সাধুবাদ জানাই।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •