প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

পেকুয়া উপজেলার মগনামা ইউনিয়ন উপকূলীয় এলাকা হওয়ায় একদিকে ঝড়, বাতাস কিংবা জলোচ্ছাসে প্লাবনের মুখোমুখি হওয়ার নিয়ত অভিজ্ঞতা তো আছেই। তার উপর দীর্ঘদিন ধরে লবণের দাম কমে যাওয়ায় মগনামার লবণ উৎপাদন ও ব্যবসা সংশ্লিষ্ট মানুষের ঘরে দুর্যোগ চলছেই। অন্যদিকে করোনা মহামারীর প্রাদুর্ভাবের মুখোমুখি হয়ে বিভিন্ন সমস্যায় পড়ে মগনামা উচ্চ বিদ্যালয়ের অনেক অসহায় পরিবারের বর্তমান শিক্ষার্থীরা অজস্র সংকটের নিদারুণ বাস্তবতায় দিনাতিপাত করছে। ঠিক এমন অসময়ে মগনামা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র ও ছাত্রীদের সহায়তায় মগনামা ইউনিয়নের ০৯ টি ওয়ার্ডের বর্তমান অধ্যয়নরত মউবির মোট ১০০ জন অসহায় শিক্ষার্থীদের ঘরে শুক্রবার রাতে ইদ উপহার পৌঁছে দেয়া হয়েছে। প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের উদ্যোগ, অর্থদান ও সহায়তায় প্রথম পর্যায়ে মগনামার অসহায় পরিবারের শিক্ষার্থীদের প্রতি এমন ইদ উপহার বিতরণ কার্যক্রম এলাকার মানুষের মুখে কৃতজ্ঞতার জোয়ার সৃষ্টি করেছে। এই ব্যাপারে প্রাক্তন ছাত্র রফিকুল কালামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান- মগনামা উচ্চ বিদ্যালয়ের অসহায় পরিবারের শিক্ষার্থীদের প্রথম পর্যায়ে ইদ উপহার পৌঁছে দেয়ার যে পরিকল্পনা আমরা সবাই মিলে নিয়েছিলাম। প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সম্মিলিত অংশগ্রহণ ও সহযোগিতায় আমরা সবাই মিলে তা সম্পন্ন করতে সক্ষম হয়েছি। এই কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে তিনি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। ভবিষ্যতে ও সকল প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের এই কাজে পাশে থাকার আহবান জানিয়েছেন তিনি।

এই ব্যাপারে মউবির দশম শ্রেণির বাণিজ্য বিভাগের শিক্ষার্থী তৌহিদুল ইসলাম জানান অনেক কষ্টে আছে তার পিতৃহীন অসহায় পরিবার। ইদের আগে বড় ভাইদের এমন উপহার তার মনে অানন্দের জোয়ার সৃষ্টি করেছে। তার পরিবারের লবণ শ্রমিক ভাইয়ের অর্থে চালিত অভাবের সংসারে সে মায়ের হাতে কিছুই দিতে পারেনি কোনদিন। আজ স্কুলের বড় ভাই-বোনদের দেয়া উপহার সে মায়ের হাতে তুলে দিয়ে মনভরে মায়ের হাসি দেখবে। সে এমন উদ্যোগের জন্য মউবির সকল প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে। নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী হাদিছা বেগম জানান পিতা ও মাতাকে হারিয়ে অসহায় ভাইয়ের সংসারে সে বাড়তি একজন। এমন অসময়ে স্কুলের বড় ভাই-বোনদের উপহার সে সারাজীবন মনে রাখবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •