মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

পবিত্র ঈদুল ফিতরের জামাত কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দান সহ জেলার কোথাও কোন খোলা মাঠে ঈদের জামাত হবেনা। ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মেনে মসজিদে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক-শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করতে হবে।

ঈদুল ফিতরের প্রস্তুতি ও জামাত বিষয়ক এক সভায় সভাপতির বক্তব্যে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন একথা বলেন।

জেলা প্রশাসক আরো বলেন, প্রয়োজন হলে একই মসজিদে পৃথক ইমাম-ময়াজ্জিন দিয়ে একাধিক ঈদুল ফিতরের জামাত করা যাবে। মসজিদের ফ্লোরে কোন কার্পেট বা গালিচা বিচানো যাবেনা।

সভায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঝুঁকি এড়াতে পবিত্র ঈদুল ফিতরের জামাত সংক্রান্ত কিছু নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সেগুলো হলো :

১. খোলা ময়দানে ঈদুল ফিতরের নামাজের জামাত আয়োজন করা যাবে না। মসজিদের অভ্যন্তরে আয়োজন করতে হবে।
২. মসজিদে ১ঘন্টা পর পর একাধিক জামাত হবে।
৩. প্রতি জামাতে পৃথক পৃথক ইমাম এবং মুয়াজ্জিন থাকবেন।
৪. প্রত্যেক জামাতের পর মসজিদ স্যানিটাইজার দিয়ে জীবাণুমুক্ত করতে হবে।
৫. ৩ ফুট দূরত্ব বজায় রেখে নামাজ আদায় করতে হবে৷
৬. মসজিদে কোন কার্পেট বিছানো যাবে না। মুসল্লীগণ ব্যক্তিগত জায়নামাজ ব্যবহার করতে পারবেন।

সভায় কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মাসুদুর রহমান মোল্লা, ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর প্রতিনিধি, ইমাম সমিতির প্রতিনিধি, কক্সবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের প্রতিনিধি সহ সংশ্লিষ্ট সকলে উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •