সংবাদ বিজ্ঞপ্তি :

কক্সবাজার, ২০ মে ২০২০: সারাদেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পরিস্থিতিতেই দেশের উপকূলীয় অঞ্চলে আঘাত হেনেছে সুপার সাইক্লোন আম্ফান। উপকূলীয় জেলা কক্সবাজার ও রোহিঙ্গাক্যাম্পে ঘূর্ণিঝড় ব্যবস্থাপনার সবধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে একশনএইড বাংলাদেশ।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে রোহিঙ্গাক্যাম্পে ঘুর্ণিঝড় আম্ফান সম্পর্কে সচেতনতা কার্যক্রম চালিয়েছে একশনএইডের স্বেচ্ছাসেবী ও কর্মীরা। ঝড়ের পূর্বাভাস হিসেবে সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে ক্যাম্পেগুলোতে টানানো হয় পতাকা। বিভিন্ন ক্যাম্পের ব্লকে ব্লকে মাইকিং করে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান সম্পর্কে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠিকে সচেতন করা হয়। এছাড়া, দুর্যোগ পরবর্তী সময়ে সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা ও জরুরি সেবা নিশ্চিত করতে ক্যাম্প ইনচার্জ (সিআইসি) অফিসের সাথে সমন্বয় করে কাজ করছে একশনএইড। ক্যাম্প ব্যবস্থাপনা ও সমন্বয় প্রকল্পের আওতায় ঘুর্ণিঝড় ব্যবস্থাপনায় প্রস্তুত রয়েছে সংস্থাটি। জরুরি প্রয়োজনে প্রস্তুত রাখা হয়েছে স্বেচ্ছাসেবক দলও।

এদিকে, ঘুর্ণিঝড় আম্ফান ব্যবস্থাপনায় কক্সবাজার স্থানীয় প্রশাসনের সাথেও কাজ করছে একশনএইড। বিশেষত, উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের ও ২ উপজেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে নানা সুপারিশ দিয়েছে সংস্থাটি। এর আগে ২০১৯ সালে দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাস প্রকল্পের আওতায় ওই ৭ ইউনিয়নের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির আপদকালীন তহবিলে অর্থ সহায়তা দেয় একশনএইড বাংলাদেশ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •