নিজস্ব প্রতিবেদক:

বঙ্গোপসাগরের কক্সবাজার উপকূলে ট্রলির ধাক্কায় একটি ফিশিংবোট ডুবে গেছে। তবে পাশের একটি বোটের লোকজন এসে উদ্ধার করায় প্রাণে বেঁচে ফিরেছে ওই বোটের মাঝি ও মাল্লারা। গত ১৪ মে এই ঘটনা ঘটে। এতে ৬৩ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

জানা গেছে, টেকনাফ উপজেলার কেরুনতলীর এলাকার সৌদি প্রবাসী মিজানুর রহমানের মালিকানাধীন ‘এফবি মেহেদী হাসান’ নামক বোটটি ভাড়ায় পরিচালনা করে আসছিলেন কক্সবাজার শহরের দক্ষিণ বাহারছড়া মৃত উলা মিয়ার পুত্র মোঃ সেলিম। যথারীতি ১৭জন মাঝি-মাল্লা ও ৩ লাখ টাকার মালাামাল নিয়ে বোটটি সাগরে মাছ ধরতে যায়। এর মধ্যে গত ১৪ মে ওই বোটটি জাল ফেলে মাছ ধরছিলো। এসময় একটি বড় মাছধরার ট্রলি এসে তাদের জালে উপর দিয়ে যায়। এতে জালের ক্ষতি হলে এর প্রতিবাদ করলে ট্রলিটি উল্টো ফিরে এসে ‘এফবি মেহেদী হাসান’ নামক বোটটিকে ধাক্কায় দেয়। এতে বোটটি ফেটে গিয়ে মুহূর্তের মধ্যেই সাগরে তলিয়ে যায়।

মাঝি-মাল্লাদের বরাত দিয়ে বোটটির ভাড়াটে মালিক মোঃ সেলিম জানান, বোটটি ডুবে গেলে মাঝি-মাল্লারা সাঁতরাতে থাকে। এক পর্যায়ে অদূরে অবস্থান করা আরেকটি ফিশিংবোটের লোকজন দেখতে পেয়ে এগিয়ে ডুবে যাওয়া বোটের মাঝি-মাল্লাদের উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। ডুবে যাওয়ার পর গত চারদিন দুটি বোট গিয়ে ওই বোটটির সন্ধান চালায়। কিন্তু কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। ডুবে যাওয়া বোট এবং জালসহ আনুসঙ্গিক মালামালের মূল্য ৬৩ লাখ টাকা। এই ঘটনায় কক্সাবাজার সদর মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেছেন ভাড়াটে মালিক মোঃ সেলিম। এ ব্যাপারে তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •