বার্তা পরিবেশক :
কক্সবাজারের উখিয়া‘র বালুখালীতে সাধারণ লোকজনকে নানাভাবে ভয়-ভীতি দেখিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে নুরুল আলম (৪৮) নামে এক ব্যক্তি‘র বিরুদ্ধে। ভুক্তভোগীদের অভিযোগ থানার দালাল খ্যাত নুরুল আলম নিজেকে প্রশাসনের খুব কাছের লোক দাবী করে কখনো মামলা উঠিয়ে নেওয়ার আবার কখনো মামলা দেওয়ার ভয় দেখিয়ে নানা কৌশলে টাকা আদায় করছে। বিদেশ ফেরত এই ব্যক্তি লোকজনকে খুব সহজে বিদেশ পাঠানোর প্রলোবন দেখিও হাতিয়ে নিচ্ছে টাকা। এমনকি ওই এলাকায় কেউ ঘর-বাড়ি করলেও তিনি প্রশাসনের নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদা দাবী করছে। তার বিরুদ্ধে কেউ অভিযোগ তুললে র‌্যাব-পুলিশ দিয়ে বড় অঘটন ঘটিয়ে দেবে বলেও হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। নুরুল আলম হলেন উখিয়া বালুখালী পূর্ব পাড়া দুই নাম্বার ওয়ার্ডের মৃত ইসলাম মিয়ার ছেলে।

ভুক্তভোগী বালুখালী জমিদার পাড়ার দরিদ্র মৃত আবুল কাশেমের ছেলে আব্দুল গফুর (৬০) জানান, নুরুল আলম তার কাছ থেকে ১ লাখ টাকা নিয়েছে মামলার ভয় দেখিয়ে। কিভাবে এই টাকা নিয়েছে এমন প্রশ্নে আব্দুল গফুর বলেন তিনি বিদেশ থেকে লস খেয়ে দেশে আসার পরে দেশের অবস্থা ঠিক বুঝে উঠতে পারছিলেননা। তার মধ্যে পরিচিত নুরুল আলম এসে বলেন তার সাথে র‌্যাব-পুলিশের ভাল সর্ম্পক। সে চাইলেই যে কাউকে মাদক ব্যবসায়ী বানাইতে পারে। আবার চাইলে মাদক ব্যবসায়ীকেও বাচাঁতেও পারে। পরে এলাকায় শান্তিতে থাকার জন্য ১ লাখ টাকা দাবী করে বৃদ্ধ আব্দুল গফুরের কাছ থেকে। ভয় পেয়ে তিনি মেয়ের স্বর্ণ বিক্রি করে এবং কিস্তি নিয়ে গত ২৮ ডিসেম্বর ৭৫ হাজার এবং ৬ জানুয়ারী ২৫ হাজার টাকা দেয়। এলাকার সচেতন যুবকেরা বিষয়টি জানলে তার কাছ থেকে টাকা ফেরত নিয়ে বৃদ্ধকে পাঠালে বড় ধরণের অঘটন হয়ে যাবে বলে হুমকি দেয় নুরুল আলম।

এছাড়া বিদেশ নেওয়ার কথা বলে এক লাখ ষাট হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে পার্শ্ববর্তী নুরুল আলম বাগার ছেলে শাহ্ জাহানের কাছ থেকে। সৌদিআরব নেওয়ার কথা বলে পার্শ্ববর্তী এলাকার আরেক যুবক হাকিম আলীর ছেলে মো: সেলিমের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছে ৮০ হাজার টাকা। দুবাই নেওয়ার কথা বলে ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে মৃত জাফর আলমের ছেলে আইয়ুব ইসলামের কাছ থেকে। ঘর তৈরী করার সময় বালুখালির ১ নং ওয়ার্ডের পশ্চিম পাড়ার মৃত মকবুল আলমের ছেলে দিদারুল ইসলামের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা নিয়েছে ইউএনওকে দেওয়া কথা বলে।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ একসময় চকরিয়া কলেজে শিবিরের সাথী হিসেবে দায়িত্বে থাকা এই নুরুল আলম এলাকায় কৃষকলীগের দায়িত্বে কিভাবে রয়েছে? মামলা খেয়ে দীর্ঘদিন প্রবাসী জীবন অতিবাহিত শেষে দেশে আসা এই ব্যাক্তি আদম ব্যাপারীর সাথেও জড়িত রয়েছে। তিনি নিজেই এলাকায় মাদক ব্যবসা আর জুয়ার সাথে জড়িত।
শুধু নুরুল আলম নয় তার পরিবারের অনেকে অপরাধ জগতের সাথে জড়িত। তার আপন ছোট ভাই নুরুল আমিন গত সাত মাস আগে ইয়াবা সহ পুলিশের হাতে আটক হয়ে এখনো জেল হাজতে রয়েছে। তার চাচাত ভাই নুরুল আবছার ও রুবেল ইয়াবা সহ ঢাকায় গ্রেফতার হয় গত এক বছর আগে। এসব অভিযোগের ব্যাপারে জানতে নুরুল আলমের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলে সংযোগ না পাওয়ায় কথা বলা সম্ভব হয়নি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •