আবদুল মালেক সিকদার, রামু:
রামুতে ভিটে বাড়ির জমির বিরুদ্ধকে কেন্দ্র করে নিজের বাড়ি নিজে পুড়িয়ে দিয়ে প্রতিপক্ষের বাড়ি ভাঙচুর করে গাছপালা কেটে ফেলেছে এবং ৪/৫ জন আহত করে। উল্টো প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর চেষ্টা,খবর শুনে রামু ফায়ার সার্ভিসের ১টি টিম ঘটনা স্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। রামু থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ১৭ ই মে বিকাল ৪ টার দিকে ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের মেরুংলোয়া গ্রামীণ ব্যাংক এর উত্তর পাশে।

সরেজমিন পরিদর্শনে গিয়ে জানা যায়, মৃত চাঁন মিয়া ছেলে মুক্তার গং এর সাথে দীর্ঘদিন ধরে ভিটে জমি নিয়ে জাফর আলমের স্ত্রী জ্যোৎস্না গং এর সাথে বিরুদ্ধে চলছে। তাদের দুই পক্ষের মধ্যে আদালতে কয়েক টি মামলাও চলমান রয়েছে । ঘটনার দিন মুক্তার গং এর জায়গা দখল করার উদ্দেশ্য প্রভাবশালী ইন্দনে জ্যোৎস্না গং ভাড়াটিয়া ২০/৩০ জন লোক জন নিয়ে গিয়ে মুক্তার গং এর লোকজন কে গালমন্দ করে। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যে ঝগড়া হয়। জ্যোৎস্না গং নিজের বাড়িতে নিজে আগুন লাগিয়ে দেয় মুক্তার গং এর একটি বাড়িতে ও আগুন লাগিয়ে দেয়। এই সময় মুক্তার গং এর ৪/৫ জন আহত হয়। তাদেরকে রামু হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ ঘটনাস্থলে থেকে চলে আসলে পুনরায় মাগরিবের সময় মুক্তার গং ৩/৪ টি বাড়ি ভাঙচুর করে বাড়ির মালামাল লুট করে নিয়ে যায় জ্যোৎস্না গং। পরে পুলিশ আবারও ঘটনা স্থলে পরিদর্শন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি মেম্বার লিটন বড়ুয়া জানান, জ্যোৎস্না গং নিজের বাড়ি নিজে পুড়িয়ে দিয়ে প্রতিপক্ষ মুক্তার গং কে ফাঁসানোর চেষ্টা চালাচ্ছে। দুই পক্ষের বড় ধরনের সংঘর্ষ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। বিগত দুই বছর আগেও জ্যোৎস্না গং২/৩ শত লোক জন নিয়ে মুক্তার গং জায়গা দখল করার চেষ্টা করছিল। ঐ সময় দুই পক্ষের মধ্যে রামু থানায় মামলা করা হয়। পরবর্তীতে আবার ও জ্যোৎস্না গং কেরোসিন দিয়ে নিজের বাড়ি নিজে পুড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করিলে রামু থানার হস্তক্ষেপে বন্ধ হয়ে যায়।

ঘটনাস্থলে যাওয়া এস আই আনুয়াররুল আজিমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমারা ঘটনা স্থলে গিয়েছিলাম। অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •