মো. নুরুল করিম আরমান, লামা:

কোন ধরণের উপসর্গ ছাড়াই বান্দরবানের লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদুল হকের পর এবার আয়া মমতাজ বেগমের নমুনা পরীক্ষার ফলাফলও পজেটিভ এসেছে, অর্থাৎ তার শরীরে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এ নিয়ে উপজেলায় মোট করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো পাঁচ জনে। রবিবার বিকালে সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক মোহাম্মদ রোবীন।

তিনি জানান, গত ১৩ মে লামা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ও অন্য স্টাফসহ মোট ৩৭ জনের নমুনা দেয়ার পর পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। শনিবার (১৬ মে) বিকালে স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদুল হক ও রবিবার বিকালে আয়া মমতাজ বেগমের নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদনে করোনা পজেটিভ এবং বাকী ৩৫ জনের রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। এদিকে রিপোর্ট পজেটিভ হলেও মমতাজের শরীরে কোন উপসর্গ দেখা যাচ্ছেনা। বর্তমানে তিনি সুস্থ আছেন। ১৪দিন পর পরীক্ষার জন্য পূণরায় তার নমুনা সংগ্রহ করা হবে।

এর আগে লামা সদর ইউনিয়নের মেরাখোলা মুসলিম পাড়ায় আক্রান্ত রাশেদা বেগম ২৩দিন আইসোলেশনে থাকার পর সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরেন। এছাড়া ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের গয়ালমারা এলাকায় আক্রান্ত দুই জন এখনো হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন বলে জানান স্বাস্থ্য পরিদর্শক মো. নাজিম উদ্দিন।

এ বিষযে লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ- জান্নাত রুমি বলেন, প্রাণঘাতী করোনা সংক্রমন এড়াতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আয়া মমতাজ বেগমকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে। আগামী ১৪ দিন পর্যন্ত তিনি ঘর থেকে বের হবেনা কিংবা কেউ বাহির থেকে তার সংস্পর্শে যেতে পারবেন না।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •