মোঃ নিজাম উদ্দিন, চকরিয়া:
স্বামীর মৃত্যুর পর সংসারের হাল ধরে দুই কন্যাকে কলেজে পড়াচ্ছেন জন্নাতুল ফেরদৌস নামের নারী। বাড়িতে বড় ছেলে সন্তান না থাকার সুবাদে পার্শ্ববর্তী দুষ্কৃতকারীরা প্রায়শই ক্ষয়ক্ষতির চেষ্টা চালায়। শেষমেশ তুচ্ছ বিষয়ে হামলা চালিয়ে দুই কন্যা কক্সবাজার সরকারি কলেজ ছাত্রী তাসরিয়া জন্নাত ইলা (১৭) ও চট্টগ্রাম সরকারি মহিলা কলেজ ছাত্রী সুমাইয়া খানম (১৯) ও প্রাইমারী ছাত্র মোঃ হামীম (৯)কে গুরুতর আহত করে।
চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারা (৯নং ওয়ার্ড) রংমহল এলাকায় এমনই অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত বর্নিত এলাকার মৃত ডাঃ হারুনের কন্যা কলেজ ছাত্রী তাসরিয়া জন্নাত ইলাকে বর্তমানে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। গত বুধবার সন্ধ্যায় হামলা চালিয়ে আহত করা হলে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে থেকে আশংকাজনক অবস্থায় সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়।
আহতদের মা জন্নাতুল ফেরদৌস অভিযোগ করে বলেন, পার্শ্ববর্তী বাড়ির মোঃ হোছনের ছেলে মোহাম্মদ (৪৬) ও তার পরিবারের লোকজন আক্রোশ জনিত কারণে হামলা চালিয়েছে। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় তুচ্ছ বিষয় নিয়ে তারা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে দা, ইট, লোহার রড দিয়ে হারুন ডাক্তারের বাড়িতে অনধিকার প্রবেশপূর্বক হামলা চালায়। এসময় দুই কলেজ ছাত্রী ও তাদের ছোটভাই গুরুতর আহত হয়। পার্শ্ববর্তী লোকজনের সহায়তায় তাদের উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কলেজ ছাত্রী তাসরিয়া জন্নাত ইলার মাথায় প্রচন্ড আঘাতপ্রাপ্ত হলে তাকে আশংকাজনক অবস্থায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে অভিযুক্ত মোহাম্মদ জানান, তিনি এবং তার পরিবার এরকম কোন ঘটনা ঘটায়নি। হামলার সময় ঘটনাস্থলে তিনি উপস্থিত ছিলেন না বলেও দাবী করেন।
ডুলাহাজারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন ও স্থানীয় মেম্বার জসিম উদ্দিন জানান, পারিবারিক বিরোধ নিয়ে হামলায় কলেজ ছাত্রীকে আহত হওয়ার খবর পেয়ে মেম্বার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। আহতকে আগে দ্রুত চিকিৎসা দিতে হাসপাতালে পাঠাতে বলা হয়েছে। পরে বিষয়টি বিস্তারিত জেনে সমাধানের চেষ্টা করা হবে বলেও জানান তারা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •