প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

মানুষ মানুষের জন্য, মানুষের বিপদের সময় পাশে থেকে সহযোগীতা করাই মানুষের ধর্ম । বর্তমানে বিশ্বব্যাপি প্রাণ ঘাতী বৈশ্বিক মহামারি করোনা (Covid -19) ভাইরাসের প্রকোপের কারণে বিপর্যস্ত মানবতা । এই সংকটে সরকার একার পক্ষে সম্ভব নই, সকল জনগোষ্টির মুখে খাদ্য তুলে দেয়া। তাই জাফর আলম চৌধুরী স্মৃতি পরিষদ চেষ্টা করেছে দুর্যোগকালীন সময়ে ভালবাসার উপহার নিয়ে দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়নের মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সরকারকে সহযোগিতা করার ।

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের মধ্যে কক্সবাজার জেলার রামু উপজেলার দক্ষিণ মিঠাছডি ইউনিয়নের ৬০০ পরিবারের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন জাফর আলম চৌধুরী স্মৃতি পরিষদ । দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে এ খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয় ।

জাফর আলম চৌধুরী স্মৃতি পরিষদের পক্ষে সমন্য়ক সাদ আল আলম চৌধুরী জানান, করোনা পরিস্থিতিতে এখন দেশের সব শ্রেণি-পেশার মানুষ অসহায়-কর্মহীন হয়ে পড়েছে। দেশের এমন ক্রান্ত্রিলগ্নে মানুষের পাশে থাকতে পারাটা সৌভাগ্যের । জাফর আলম চৌধুরী স্মৃতি পরিষদ বরাবরে ন্যায় দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়নের জনগণের সাথে তাদের যে কোন প্রয়োজনে ছিল ও ভবিষ্যতে থাকবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন । মানবিক ও সামাজিক দায়বোধ থেকে জাফর আলম চৌধুরী স্মৃতি পরিষদ দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়নে বছর ব্যাপি তাদের বিভিন্ন কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে ।

পরিবারবর্গের পক্ষ থেকে ইয়াছিন মনির সোহাদ জানিয়েছেন, জাফর আলম চৌধুরী স্মৃতি পরিষদের এ উদ্যোগ সফলভাবে সম্পুর্ণ করতে সহযোগীতা করছেন – দানেশ চৌধুরীর পরিবার , ডা: ফরিদুল আলম চৌধুরীর পরিবার,রফিকুল আলম চৌধুরীর পরিবার, দিদারুল আলম চৌধুরীর পরিবার , ডা: ফয়েজুর রহমান এর পরিবার , বেদারুল আলম চৌধুরীর পরিবার এবং মনিরুল আলম চৌধুরীর পরিবার । তিনি আরো বলেন, উদ্যোগটি সুষ্ঠভাবে ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করতে সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল (ডিএজি) ব্যারিস্টার নওরোজ মোহাম্মদ রাসেল চৌধুরী ।

উল্লেখ্য , মরহুম জাফর আলম চৌধুরী দক্ষিণ চট্টগ্রামের অন্যতম প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তি, সমাজ সেবক এবং শিক্ষানুরাগী ছিলেন । তদানীন্তন পরাক্রমশীল মুসলীম লীগের বিরুদ্ধ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে কক্সবাজার জেলা থেকে নির্বাচন করে পরপর ২ বার এম.পি.এ ( বর্তমানে এম.পি) হিসেবে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হন । তিনি অত্র এলাকায় স্কুল, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছেন। কক্সবাজার সরকারী কলেজ ও রামু খিজারী স্কুলে আমৃত্যু বিভিন্ন ব্যাপারে তার পৃষ্ঠপোষকতা স্মরণীয় হয়ে থাকবে ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •