আলমগীর মানিক,রাঙামাটি :
রাঙামাটিতে নতুন করে দুই চিকিৎসকসহ আরো ৫জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের সংক্রামন পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ। বুধবার রাত আটটার সময় জেলার করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডাঃ মোস্তফা কামাল জানিয়েছেন, নতুন করে আরো পাঁচজনের নমুনা পরীক্ষায় পজেটিভ রিপোর্ট তারা পেয়েছেন। এই পাঁচজনের মধ্যে রাঙামাটি শহরের বাসিন্দা দু’জনই উপজাতীয় সম্প্রদায়ের। তাদের মধ্যে ৩২ বছর বয়সী একজন সরকারী জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক, অপরজন ৪২ বছর বয়সী পেশায় চিকিৎসক হলেও সরকারী চাকুরীজীবি নন। বাকি তিনজনের মধ্যে দুইজন বিলাইছড়ি উপজেলা সদরের বাঙ্গালী বাসিন্দা। তারা উভয়েই মা (৩১)-ছেলে-(১৩)। অপরএকজন রাজস্থলী উপজেলার উপজাতীয় বাসিন্দা (৩৭)।
করোনা ইউনিটের ফোকাল পার্সন ডাঃ মোস্তফা কামাল জানিয়েছেন, তাদের প্রায় সকলেই মোটামুটি সুস্থাবস্থায় রয়েছেন একজন রাজস্থলীতে আইসুলেশনে রয়েছেন। এদের কাছ থেকে গত ৭ই মে নমুনা সংগ্রহ করে চট্টগ্রাম পাঠানো হয়েছিলো। বুধবার রাত আটটায় তাদের রিপোর্ট হাতে পায় রাঙামাটির স্বাস্থ্য বিভাগ কর্তৃপক্ষ।
ডাঃ মোস্তফা কামাল জানান, এনিয়ে রাঙামাটিতে সর্বমোট ১০জন ব্যক্তির শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্থিত্ব পাওয়া গেছে। তার মধ্যে সরকারী জেনারেল হাসপাতালের এক চিকিৎসকসহ দু’জন নার্স, একজন রয়েছেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চিকিৎসক। বাকিদের মধ্যে রিজার্ভ বাজারের ৯ মাস বয়সী শিশু একজন, শহরের দেবাশীষ নগরের বাসিন্দা এক শিক্ষার্থী, মোল্লা পাড়ার একজন দিন মজুর রয়েছে। এদের মধ্যে চারজনের দ্বিতীয় বারের নমুনা পরীক্ষায় নেগেটিভ রিপোর্ট আসলেও তাদের কাছ থেকে তৃতীয়বারের মতো নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ।
ডাঃ মোস্তফা কামাল জানিয়েছেন, এখনো পর্যন্ত রাঙামাটি থেকে সর্বমোট ৪৯০টি সংগৃহীত নমুনা পরীক্ষার জন্য চট্টগ্রামে পাঠিয়েছে জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ কর্তৃপক্ষ। তারমধ্যে বুধবার রাত পর্যন্ত সর্বমোট ৩৩৫টি নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়া গেলেও এখনো পর্যন্ত ১৫৫টি রিপোর্ট অপেক্ষমান রয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •