মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার জেলায় আরো ১১ জন করোনা ভাইরাস জীবাণু আক্রান্ত রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। মঙ্গলবার ১২মে তার ভয়ংকর করোনার সাথে যুদ্ধ করে জয়ী হয়েছেন।

এদের মধ্যে রামু ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতাল থেকে ৭ জন করোনা রোগী রিলিজ হয়েছেন। তারা হলেন- কক্সবাজার সদর উপজেলার প্রদীপ শর্মা, আবু বকর ছিদ্দিক ও আবু বকর ছিদ্দিক তুষার। উখিয়া উপজেলার খুরশিদা বেগম ও থাইমং মার্মা। মহেশখালী উপজেলার আরজু বেগম এবং পেকুয়া উপজেলার ফাতেমা নার্গিস।

রামু ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালের সদস্য সচিব ডা. নোবেল কুমার বড়ুয়া সিবিএন-কে এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি আরো জানান, মঙ্গলবারে রিলিজ হওয়া এ ৭ জন সহ রামু ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে মোট ২২জন নিজ নিজ বাড়িতে ফিরেছেন। বর্তমানে রামু ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালে আরো ২০ জন করোনা রোগী চিকিৎসাধীন আছেন বলে জানান, রামু উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নোবেল কুমার বড়ুয়া।

এদিকে করোনার ‘হটস্পট’ হিসাবে পরিচিত চকরিয়া উপজেলা আরো ৩ জন করোনা রোগী হোম আইসোলেশন থেকে সুস্থ হয়ে মুক্ত হয়েছেন। তারা হলেন, চকরিয়া পৌরসভার ভরামুহুরী এলাকার আমেনা বেগম (২৪), ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের মিজানুর রহমান (৩০) এবং চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নার্স প্রিমা।

চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ শাহবাজ সিবিএন-কে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি আরো জানান, এরা সকলেই নিজ নিজ বাড়িতে সেল্ফ আইসোলেশনে উপজেলা স্বাস্থ্য টিমের তত্বাবধানে থেকে সুস্থ হয়েছেন। এর আগেও চকরিয়ার আরো ২ জন করোনা রোগী নিজ বাড়িতে সেল্ফ আইসোলেশনে উপজেলা স্বাস্থ্য টিমের তত্বাবধানে থেকে সুস্থ হয়েছেন বলে জানান, ডা. মোহাম্মদ শাহবাজ।

এছাড়া টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক করোনা রোগী ডা. তাসনোভা চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরেছেন বলে জানিয়েছেন টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. টিটু চন্দ্র শীল। উক্ত মহিলা চিকিৎসক আইএম কর্তৃক নিয়োগ প্রাপ্ত হয়ে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দায়িত্ব পালন করতেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •