শাহী কামরান:
করোনা পরিস্থিতিতে জরুরী সেবা হিসেবে ঘোষিত ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা পরিবাহি এই তার কেটেছে স্থানীয় বিদ্যুত উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি)। ফলে জেলা শহরের লাভনি মোড় থেকে কলাতলি পর্যন্ত এক কিলোমিটারের এর বেশি এলাকায় ৫ হাজারের মতো লাইন কাটা হয়েছে।

সোমবার সকাল ৯টা থেকে ১১টার মধ্যে এই সংযোগগুগলো বিচ্ছিন্নের ঘটনা ঘটে। ফলে ওই এলাকাটিই এখন ডিজিটাল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। প্রতিটি ইন্টারনেট সেবাদাতাই এর ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বলে ঘটনাস্থল থেকে জানিয়েছেন কেএস নেটওয়ার্কের নাজমুল করিম।

ঘটনাটি ঘটেছে কক্সবাজার হোটেল মোটেল জোন কলাতলীতে। পিডিবি কক্সবাজার অফিস হতে কোন প্রকার পূর্বানোটিশ ব্যতিত ইন্টারনেট ফাইবার ক্যাবল কর্তন করেছে বলে অভিযোগ করেছে ভোক্তভোগীরা। শুধু আজকে বা একবার নই তারা বার বার এমন ভুল করেন বলে জানা গেছে। এতে চরম বিভ্রান্ত হচ্ছে সরকারি বেসরকারি অফিস ও হোটেল মোটেল জোনের সকল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা।

বেশ কয়েকজন ক্যাবল অপারেটর মালিকগন জানান, কোন প্রকার নোটিশ ছাড়া পিডিবি সবসময় ফাইবার ক্যাবল কর্তন করে। বিদ্যুতের খুটি অপসারন বা স্থানান্তর করার সময় তারা এমটি করে থাকে। এতে আমরা চরম বিভ্রান্তিতে পড়ি। তাছাড়া শুনতে হয় সাধারন গ্রাহকদের গালি। বিশেষ করে হোটেল মোটেল জোন হচ্ছে ভিআইপি এরিয়া। এখানে শর্ত সাপেক্ষে নিরবিচ্ছিন্ন ইন্টারনেট সংযোগ রাখতে হয়। কিন্তু পিডিবির কামখেয়ালিপনার কারনে আমরা সেই শর্ত রক্ষা করতে পারছিনা। তাদের এমন ভুলের কারনে আমাদের পোহাতে হচ্ছে ব্যাঘাত। মাহামারীর এই লকডাউনে মানুষ ঘরে বসে বিনোদন ও দেশবিদেশের খবরাখবর নিচ্ছে। এমতাবস্থায় বার বার ইন্টারনেট কানেকশন বিচ্ছিন্ন ঘটায় আমাদের হজম করতে হচ্ছে গ্রাহকদের গালি। আমরা ক্যাবল অপারেটরগন মান্যবর জেলা প্রশাসকের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি। পরবর্তীতে পিডিবির কোন বিদ্যুতের খুটি অপসারন বা স্থানাস্থর করলে পূর্বে আমাদের যেন নোটিশ প্রদান করা হয়। তাহলে জেলাবাসীকে নিরবিচ্ছিন্ন ইন্টারনেট সংযোগ দিতে আমরা সক্ষম হবো।

এই ব্যাপারে জানতে, কক্সবাজার পিডিবি অফিসের প্রধান প্রকৌশলীর ব্যবহৃত মুঠোফোন নাম্বারে ফোন করে তাকে পাওয়া যায়নি। তাই বিস্তারিত জানা সম্ভব হয়নি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •