নিজস্ব প্রতিবেদক:
হাসান মুরাদ আনাচ। টগবগে এক যুবকের নাম। মানবিক, সামাজিক কর্মকাণ্ডে যার কোন জুড়ি নাই। যেখানে সমস্যা-দুর্দশা সেখানে ছুটে যান অনায়াসে।

যতটুকু সম্ভব, সাহায্য-সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। পাড়া-মহল্লা গিয়ে খোঁজ খবর রাখেন গরীব-দুঃখী মানুষের। দল-মত নির্বিশেষে সবার আপনজন। পাশে থাকেন সবসময়।

হাসান মুরাদ আনাচ কক্সবাজার সদরের অবিভক্ত চৌফলদন্ডী ইউনিয়নের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মরহুম মাস্টার কবির মিয়ার সুযোগ্য নাতি, কক্সবাজার ইকরা বীচ হোটেলের পরিচালক ও তাজ-বে রেস্তোরাঁর এমডি।

২০১৯ সালের ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী ছিলেন হাসান মুরাদ।

সামান্য ভোটে হেরে গেলেও মাঠে হারেন নি তিনি। বিশ্ব মহামারী করোনার দুর্যোগকালেও ছুটে চলেছেন।

খাদ্য সামগ্রী বিতরণ, চিকিৎসা সেবা থেকে শুরু করে মানবিক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন। অথচ তার সঙ্গে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ডজনেরও বেশি প্রার্থী এখন হাওয়া।

সদরের চৌফলদন্ডির মতো শহর বিচ্ছিন্ন একটি জনপদে হাসান মুরাদের জন্ম। তবে একটি মুহূর্তের জন্যও জনবিচ্ছিন্ন থাকেননি সাদামাটা এই মানুষটি। রয়েছেন জনতার কাতারেই।

ফিডব্যাকঃ
৯ মে সকাল ১০ টা। উপকূলীয় ইউনিয়ন চৌফলদন্ডী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিতে যায় জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান হাসপাতাল। যেখানে রয়েছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক টিম। দেখে তো গ্রামীণ লোকজন অবাক।

আবার রোগীদের ফ্রী ওষুধ ও মাস্ক, স্যানিটাজার সামগ্রীও বিতরণ করা হয় ওই হাসপাতালে।

এভাবে ফ্রী সেবা পেয়ে করোনা জনিত মহাসংকটের মাঝেও যেন এক টুকরো স্বর্গের স্বাদ পেলো গ্রামীণ জনপদের মানুষগুলো।

প্রশাসনের বর্ণাঢ্য আয়োজনে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করেছে নয়না পরিবার ট্রাস্ট।

ভ্রাম্যমাণ হাসপাতালে ব্যবহারের জন্য মূল্যবান ওষুধ সামগ্রী হস্তান্তর করেন ট্রাস্টের সভাপতি হাসান মুরাদ আনাচ।

এর আগেও অসহায়, হতদরিদ্র মানুষদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন তিনি।

হাসান মুরাদ আনাচের আগামীর কর্ম পরিকল্পনার বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়।

ভ্রাম্যমাণ হাসপাতালে ব্যবহারের জন্য মূল্যবান সামগ্রী হস্তান্তর করেন নয়না পরিবার ট্রাস্টের সভাপতি হাসান মুরাদ আনাচ।

তিনি বলেন, করোনার কারণে অসংখ্য মানুষ বেকার। অর্থ সঙ্কটে পড়েছে কর্মজীবী মানুষগুলো। নেতা হওয়ার জন্য নয়, মানবিকবোধ থেকে মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করে যাচ্ছি। নির্বাচন করেছেন এমন অনেকে এখন আত্মরক্ষায় চিন্তিত। নেতা দাবি করে, অথচ বিপদের দিনে মানুষের পেটের খবর নিচ্ছে না।

তিনি বলেন, আমি কোন সুনির্দিষ্ট দল বা গোষ্ঠীর নই। আমি আমজনতার। আজীবন জনতার পাশেই থাকবো, ইনশাল্লাহ। একমাত্র ভরসা মহান আল্লাহর রহমত। সবার দোয়া ও ভালবাসাই আমার চলার পথে অনুপ্রেরণা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •