নিজস্ব প্রতিবেদক:

ককসবাজার দোকান মালিক সমিতি ফেডারেশনের সভায় চলমান করোনা মহামারি প্রতিরোধে জনসমাগম এড়াতে ককসবাজারে ঈদের আগ পর্যন্ত দোকান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিলেও কয়েকমাস যাবত কর্মচারি ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ক্ষতির বিষয়টি চিন্তা করে সীমিত আকারে দোকান খোলা যায় কিনা পরবর্তী ১৩ মে সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানানো হয়।

ককসবাজার দোকান মালিক সমিতি ফেডারেশনের সভাপতি মোস্তাক আহমদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গতকাল ফেডারেশনের উদ্যোগে ব্যবসায়ীদের নিয়ে জরুরি সভা সভাপতি মোস্তাক আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।
যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নুরুল কবির চৌধুরীর পরিচালনায়
সভায় বক্তব্য রাখেন সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, বিশিষ্ট বয়বসায়ী ফিরোজ আহমদ ওসমানী, ফেডারেশনের অর্থ সম্পাদক নুরুল আমিন, দোকান কর্মচারি ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সাহাব উদ্দিন, শহিদুল ইসলাম বাবুল, জহিরুল ইসলাম, মোহাম্মদ লোকমান, সিরাজুল ইসলাম, মহারাজ বাবু, মিন্টু ও মোস্তাক আহমদ।

১০ মে থেকে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও ঈদকে সামনে রেখে দোকান খোলার প্রস্তুতিও নেয় ক্ষতিগ্রস্হ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা।
কিন্তু দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিনদিন বাড়তে থাকায় চলমান পরিস্থিতিতে দোকান বন্ধ রাখার বিষয়ে আলোচনা করেন ফেডারেশনের নেতারা।

অপরদিকে গতকাল কতিপয় ব্যবসায়ী দোকান বন্ধ রাখার জন্য লাঠি সোটা নিয়ে ব্যবসায়িদের মাঝে আতংক সৃষ্টির করায় ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দ তীব্র নিন্দা জানায়।

ক্ষতিগ্রস্হ কর্মচারি ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জন্য সরকারের কাছে প্রনোদনার দাবী জানায় ফেডারেশনের নেতারা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •