মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার শহরের পূর্ব কুতুবদিয়া পাড়ায় রোহিঙ্গা স্বামীর দফায় দফায় পৈশাচিক নির্যাতনে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটেছে। শনিবার ৯মে রাত ৮ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

প্রতিবেশীরা জানান, টেকনাফের হ্নীলা মৌলভীবাজারের মরিচ্যাঘোনার বাসিন্দা মীর আহমদ ও লায়লা বেগমের কন্যা আনোয়ারা বেগমের সাথে মিয়ানমার থেকে কক্সবাজারে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা আবদুশ শুক্কুরের পুত্র নুর হোসেনের বিগত ৫ বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের একটি কন্যা শিশুও রয়েছে। আনোয়ারা বেগম ও নুর হোসেন পূর্ব কুতুবদিয়াপাড়ায় জনৈকা খালেদা বেগমের ভাড়াবাসায় ভাড়া থাকে। আনোয়ারা বেগম ৫ মাসের গর্ভবতী ছিলেন।

শনিবার বিকেল ৩টার দিকে পারিবারিক কলহের জের ধরে আনোয়ারা বেগমকে তার স্বামী নুর হোসেন বেদম মারধর করে। পরে একই ঘটনার জের ধরে একইদিন সাড়ে ৫টার দিকে আবারো আনোয়ারা বেগম এর উপর পৈশাচিক নির্যাতন চালায় নুর হোসেন। এরপর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার পরে আনোয়ারা বেগমের মা লায়লা বেগম ঘটনার খবর পেয়ে কন্যাকে দেখতে আসলে হিংস্র নুর হোসেন দা নিয়ে শ্বাশুড়িকে তাড়িয়ে নিয়ে যায়। সেখান থেকে নুর হোসেন আবার এসে আনোয়ারা বেগম এর উপর তৃতীয় দফায় অমানুষিক নির্যাতন চালায়। প্রতিবেশিরা জানিয়েছে, এতে আনোয়ারা বেগম অচেতন হয়ে পড়ে। রাত সাড়ে ৮ টার দিকে আনোয়ারা বেগমকে নুর হোসেন, তার ভগ্নিপতি সাইফুল ও রহমান কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক অন্তঃসত্ত্বা আনোয়ারা বেগমকে মৃত ঘোষণা করেন। তখন মৃত আনোয়ারা বেগম এর লাশ হাসপাতালে ফেলে স্বামী রোহিঙ্গা নুর হোসেন, তার ভগ্নিপতি সাইফুল ও রহমান দ্রুত পালিয়ে যায়।

পরে রাত সাড়ে ৯ টার দিকে আনোয়ারা বেগম এর পিতা মাতা তাদের কন্যার খুঁজাখুঁজি করতে জেলা সদর হাসপাতালে আসলে তারা সেখানে আনোয়ারা বেগমকে দেখতে নাপেয়ে হতাশ পড়ে। তখন হাসাপাতালের কর্মচারীরা তাদের জানান, এক মহিলার একটি বেওয়ারিশ লাশ তারা কিছুক্ষণ আগে হাসপাতাল পুলিশের জিম্মায় মর্গে রেখে এসেছেন। পরে আনোয়ারা বেগম এর পিতা মাতা মর্গে গিয়ে দেখতে পান সে লাশই তাদের কন্যা আনোয়ার বেগম। কন্যার নিথর দেহ দেখতে পেয়ে তারা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

এ বিষয়ে কক্সবাজার মডেল থানা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, আনোয়ারা বেগম এর স্বজনদের মাধ্যমে তারা খবর পেয়ে লাশটির সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রেখে আসে। আনোয়ারা বেগম এর পিতা এ বিষয়ে হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে থানা সুত্রে জানা গেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •