ইউছুফ আরমান

 

করোনা পরিস্থিতির কারণে পৌরবাসী যখন নিরাপদে বাসায় থাকছেন, তখন কিছু মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে হাসিমুখে জরুরী সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। মহামারীর এই সময়ে দায়িত্ব পালনে নানা প্রতিকূলতা থাকলেও, সেবা দিতে পেরেই গর্বিত কক্সবাজার পৌরসভার সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ইয়াছমিন আকতার। তিনি জনগণের স্বার্থে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নিরাপত্তা নিশ্চিত করে যাচ্ছে।

তিনি জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে জনপ্রতিনিধি হয়েছে, তাই নিজ নিজ এলাকায় কাজ করে মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস এবং ভালবাসা অর্জন করা তার নৈতিক দায়িত্ব।

বিশ্বজুড়ে মহামারী করোনা ভাইরাস বিস্তার রোধে সরকার জনগণকে লকডাউনে ফেলেছে। সেই দূর্যোগ মোকাবেলা করতে ঘড়ির কাটা যখন ১০টা রৌদ্রের প্রখর তাপে, মেঠো পথে গায়ের ঘাম ঝরিয়ে কাউন্সিলর ইয়াছমিন আকতার নিজের এলাকা কে ক্ষুধা মুক্ত করতে প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে প্রতিটি নাগরিক অসহায় দুঃস্থ মানুষের নামে রেশন কার্ড ইস্যু করা হয়েছে। আর সে রেশন কার্ড কাউন্সিলর ইয়াছমিন আকতার নিজ দায়িত্বে সাধ্য মতে নাগরিকের ঘরে ঘরে পৌঁছানো চেষ্টা করে যাচ্ছেন। অক্লান্ত পরিশ্রমে জনগণের ঘরে ঘরে রেশন কার্ড পৌঁছে দিতে তার ছুটে চলা অবিরাম। তারই ধারাবাহিকতায় একজন মহিলা কাউন্সিলর নৈতিক দায়িত্ব বর্তমান সমাজে বিরল। যে সকল গুণের অধিকারী একজন নারী কাউন্সিলর।

জনপ্রতিনিধির সামগ্রিক যোগ্যতাঃ- দূর্যোগ মুহূর্তে একটি সভ্য সমাজের সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য হলো প্রতিনিধিত্বপূর্ণ সমাজ ব্যবস্থা। আর তাই প্রতিনিধিত্বমূলক সমাজ দিয়েই পৃথিবীতে মানবসভ্যতার সূচনা হয়েছিল। ফলশ্রুতিতে জনপ্রতিনিধি বিশাল জনগোষ্ঠীর সার্বিক ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব বহন করা। জনপ্রতিনিধির সামগ্রিক যোগ্যতা, প্রজ্ঞা ও দূরদর্শিতার ওপর ভিত্তি করে সমাজ ও জাতির ভবিষ্যৎ নির্মিত। সুতরাং জনপ্রতিনিধির বৈশিষ্ট্য গুণে যেমন একটি সমাজ ইতিহাসের স্বর্ণচূড়ায় আরোহণ করতে পারে, তেমনি তার ব্যর্থতা একটি জাতিকে ইতিহাসের আঁস্তাকুড়ে নিক্ষেপ করতে পারে। সেজন্যই জনপ্রতিনিধি নির্বাচনের গুরুত্ব সীমাহীন।

আমানতদারি ও ন্যায়পরায়ণতাঃ- সাধারণত নির্বাচনী এলাকায় বসবাসকারী জনগণের কল্যাণে জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে প্রয়োজনীয় সরকারি-বেসরকারি সহায়তা ও অনুদান থাকে। সুতরাং জনপ্রতিনিধি আমানতদার না হলে জনগণ বঞ্চিত হবে। এলাকায় কাংক্ষিত পর্যায়ের উন্নয়ন হবে না। ফলে জনপ্রতিনিধি আমানতদার ও ন্যায়পরায়ণ হওয়া অত্যাবশ্যক।

হৃদয়বান ও জনদরদি হওয়াঃ- জনপ্রতিনিধি আন্তরিক, হৃদয়বান ও জনদরদি হওয়া অত্যন্ত জরুরী। কারণ জনপ্রতিনিধি যদি জনতার প্রতি ভালোবাসা না রাখে, জনগণের সঙ্গে তার সম্পর্ক যদি বন্ধুত্বপূর্ণ না হয়। তাহলে তার মাধ্যমে জনগণের স্বার্থ রক্ষা সম্ভব নয়।

জনসেবার মন-মানসিকতা থাকাঃ- জন সেবার মানসিকতা জনপ্রতিনিধির আবশ্যিক অনুষঙ্গ। জনগণের সেবা করতে না পারলে তাদের নেতা হওয়ার কোনো সার্থকতা নেই। ফলে তাদের শাসনামলে জনসাধারণ উন্নত জীবনযাপনের পাশাপাশি নিরাপত্তা, শান্তি-সুখ ও সমৃদ্ধির শিখরে পৌঁছে দেবে।

কর্তব্যের প্রতি দায়িত্ববোধঃ- জনপ্রতিনিধি দায়িত্বশীল ও কর্তব্যপরায়ণ হওয়া অপরিহার্য। প্রতিটি কাজ সর্বোৎকৃষ্টভাবে করার চেষ্টা করতে হবে। কেবল তারই জন্য সকলে প্রাণ ভরা দোয়া করে কাউন্সিলর ইয়াছমিন আকতারের দীর্ঘায়ু কামনা করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •