আব্দুল্লাহ আল-মামুন

সৃষ্টির সেরা জীব হলো মানুষ।আমরা নিজেদের মানুষ হিসেবে গর্ববোধ করি।কিন্তু কোনো কারণে নিজেদের মানুষ বলে দাবী করি? মানুষ বলতে কেবল দুই হাত, দুই পা, দুই চোখ, নাক, কান মুখ আছে বলেই কোনো প্রাণী মানু্ষ নয়।মানুষ হল তার স্বভাব, তার আচরণ, তার কর্ম, সব কিছুর সমষ্টি।আর একজন মানুষের সব কিছু নিয়ন্ত্রিত হয় তার মনুষত্ব বা বিবেক দ্বারা।
প্রাণীদের মাঝে মানুষের মতো হাত, পা, নাক, কান, চোখ, মুখ সব আছে কিন্তু তাদের মানুষ গণ্য করা হয়না।কারন মানুষের বিবেকবোধ তাদের নেই।মানুষের মনুষত্ববোধ, বিবেকবোধ আছে বলেই মানুষকে মানুষ বলা হয়।মানুষের প্রধান পরিচয় হলো কর্ম।একজন মানুষকে তার কর্মে বেঁচে রাখে।অনেক মানুষ মৃত্যুবরণ করেও এখনো তার কর্মে কোটি মানুষের হৃদয়ে অমর।

মানুষ স্বভাবতই ইচ্ছা দ্বারা পরিচালিত হয়।সকল মানুষই নীরব নিথর পাথরের ন্যায় হয়ে যেত,যদি ইচ্ছা শক্তি না থাকত।প্রতিনিয়ত মানুষকে ইচ্ছা শক্তি জাগ্রত করে।পৃথিবীর সৃষ্টির পর থেকে মানুষ প্রকৃতির কাছে খুব অসহায় ছিল।তারা খাদ্য সংগ্রহ করে বেঁচে থাকত!কিভাবে খাদ্য উৎপাদন করা যায় সে মেধাটুকু তখন তাদের ছিলনা।তারপরেও তারা একতা বন্ধভাবে জীবন-যাপন করত।তারা যদি খাদ্য সংগ্রহ করতে না পারত তখনি সবাই অনাহারে থাকত।আবার খাদ্য সংগ্রহ করতে পারলে যা সবাই মিলে আহার করত।যুগে যুগে মানুষ প্রাকৃতির সাথে লড়ে এসেছে।যুগের তাল মিলিয়ে তারা গড়ে তুলে পরিবার, সমাজ, রাষ্ট্র। মানুষ পরিবর্তনশীল।মানুষকে অবশ্যই পরিবর্তন হতেই হবে।

আমরা মানুষ,আমরা সৃষ্টির সেরা জীব।আমাদের মধ্যে থাকবে না কোনো হিংসা, কোনো অহংকার।আমরা মানুষ যেহেতু আমরা আমাদের কর্মের দ্বারা যুগযুগ বেঁচে থাকব।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •