মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে আউটডোরে সাধারণ রোগী দেখার জন্য স্থাপিত ‘ডক্টরর্স সেফটি চেম্বার’ চিকিৎসক ও রোগীর স্বাস্থ্যগত নিরাপত্তায় অসাধারণ ভূমিকা রাখবে। ‘ডক্টর সেফটি চেম্বার’ বসে রোগী দেখতে চিকিৎসকদের মনে কোন ভীতি থাকবে না। শংকামুক্ত হয়ে অত্যন্ত স্বাচ্ছন্দ্যে চিকিৎসকেরা আউটডোরে রোগীদের চিকিৎসা সেবা দিতে পারবেন। পাশাপাশি আউটডোরে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রোগীরাও চলমান করোনা ভাইরাস জীবাণু সংক্রমণ থেকে মুক্ত থাকতে পারবেন।

কক্সবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা সদর হাসপাতালে ‘কক্সবাজার করোনা সহায়তা তহবিল’ এর উদ্যোগে চিকিৎসকদের নিরাপত্তার জন্য আউটডোরে ‘ডক্টরস সেফটি চেম্বার’ স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন বিপিএম (বার) একথা বলেন।

বৃহস্পতিবার ৭মে সকালে জেলা সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ও উপপরিচালক ডা. মোহাম্মদ মহিউদ্দিন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার করোনা সহয়তা তহবিল এর অন্যতম উদ্যোক্তা ও জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে কক্সবাজার করোনা সহায়তা তহবিল এর পক্ষে কক্সবাজার জেলা কমিউনিটি পুলিশিং এর সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি সোহেল আহমদ বাহদুর, সাংবাদিক নজরুল ইসলাম, সাংবাদিক ইমরুল কায়েস প্রমুখ এবং অপরদিকে, জেলা সদর হাসপাতালের পক্ষে হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. রফিকুস সালেহীন ও ডা. সুমন বড়ুয়া, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. শাহীন আবদুর রহমান ও ডা. গোলাম মোস্তফা নাদিম, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডা. সৈয়দ মারুফুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন বিপিএম (বার) আরো বলেন, ভয়ংকর করোনা যুদ্ধের ফ্রন্ট লাইনের অকুতোভয় সেনানী হচ্ছেন চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ, গণমাধ্যমকর্মী, মাঠে কর্মরত প্রশাসনিক কর্মকর্তা সহ অন্যান্যরা। আমরা সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বৈশ্বিক মহামারী করোনাকে জয় করে জাতিকে আবারো একটি সুন্দর, সমৃদ্ধশালী ও ভীতিমুক্ত একটি দেশ উপহার দিতে হবে।

করোনা ভাইরাস সংক্রামণ প্রতিরোধে ও সংকটে পড়া মানুষদের সাহায্যার্থে গঠিত ‘কক্সবাজার করোনা সহয়তা তহবিল’ এই ‘ডক্টরর্স সেফটি চেম্বার’ স্থাপন করে দৃষ্টান্তমূলক একটি মানবিক কাজ করেছে বলে এসপি এবিএম মাসুদ হোসেন বিপিএম (বার) উল্লেখ করেন। যা অন্য সবার জন্য নিঃসন্দেহে অনুকরণীয়।

‘কক্সবাজার করোনা সহয়তা তহবিল’ এর প্রধান উদ্যোক্তা কক্সবাজার জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন বলেন, ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ‘ডক্টরস সেফটি চেম্বার’ স্থাপন করতে পেরে আমরা গর্ববোধ করছি।
‘ডক্টরর্স সেফটি চেম্বার’ এ বসে চিকিৎসকেরা অত্যন্ত নিরাপদে ও নির্ভয়ে আউটডোরে করোনা ভাইরাস রোগী ব্যতীত অন্যান্য সকল রোগী অনায়াসে দেখে ব্যবস্থাপত্র ও ইন্টারকমে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিতে পারবেন। এতে রোগীও নিরাপদে থাকবেন বলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। এই ‘ডক্টরস সেফটি চেম্বার’ টি নির্মাণ, স্থাপন ইত্যাদিতে অর্ধ্ব লক্ষাধিক টাকা ব্যয় হয়েছে বলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন জানান। যা সবই বিভিন্নজনের প্রদত্ত মানবিক অনুদান।

অনুষ্ঠানের সভাপতি কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ও উপপরিচালক ডা. মোঃ মহিউদ্দিন বলেন, ‘কক্সবাজার করোনা সহায়তা তহবিল’ এর উদ্যোগে বর্হিবিভাগের রোগী দেখার জন্য ‘ডক্টরস সেফটি চেম্বার’ স্থাপনের বিষয়টি নিঃসন্দেহে চিকিৎসক ও রোগীদের জন্য বিশাল একটা প্রাপ্তি। তিনি বলেন, ‘ডক্টরস সেফটি চেম্বার’ এর কারণে চিকিৎসক এবং রোগী উভয়ে নিরাপদ ও স্বস্তিতে থাকবে। উপ পরিচালক ডা. মোঃ মহিউদ্দিন প্রধান অতিথি পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন বিপিএম (বার), কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ‘ডক্টরর্স সেফটি চেম্বার’ স্থাপনকারী সংগঠন ‘কক্সবাজার করোনা সহায়তা তহবিল’ এর প্রধান উদ্যোক্তা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •