আলমগীর মানিক, রাঙামাটি:
রাঙামাটিতে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলার পাশাপাশি আসন্ন বর্ষা মৌসুম সামনে রেখে পাহাড় ধ্বস ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রতিরোধে করণীয় বিষয়ক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (৭ মে) জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদের সভাপতিত্বে এতে উপস্থিত ছিলেন- সেনাবাহিনীর সদর জোন কমান্ডার লেফট্যানেন্ট কর্ণেল নাজমুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মাঈন উদ্দীন, পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, কৃষি অধিদপ্তরের উপপরিচালক পবন কুমার, ফায়ার ব্রিগেডের সহকারী পরিচালক রতন দাশসহ বিভিন্ন সংস্থা ও বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। ২০১৭ সালের ১৩ জুন ভয়াল ভূমি ধ্বসের ঘটনায় সদরসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে ৫ সেনা সদস্যসহ সর্বমোট ১২০ জনের প্রাণহানি ঘটে। পরের বছর ২০১৮ সালেও প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধ্বসে জেলার নানিয়ারচরে আরো ১১ জনের প্রাণহানি হয়েছে।
এবারও আসন্ন বর্ষায় যাতে আর কোনো প্রাণহানি না ঘটে, সেজন্য পাহাড় ধ্বস ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রতিরোধে সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিচ্ছে জেলা প্রশাসন। এসব প্রস্তুতির মধ্যে জনসচেতনতা সৃষ্টিসহ সর্বসাধারণকে পাহাড় কাটা থেকে বিরত থাকার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পাহাড় কাটার সংবাদ তাৎক্ষণিক জেলা ও উপজেলা প্রশাসনসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে জানাতে বলেছে জেলা প্রশাসন। সভায় জানানো হয়েছে, পাহাড়ের পাদদেশ ও ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাস থেকে বসতঘর সরিয়ে নিরাপদে যেতে।
উক্ত সভার সভাপতি রাঙামাটি জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদ বলেন, বিগত বছরগুলোতে রাঙামাটি শহরে বড় ধরনের দুর্যোগ মোকাবেলার সম্ভব হয়েছে। বিগত বছর গুলোর মতো এবারও আগাম প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। সবার সচেতনতা থাকতে হবে। গণসচেতনতার জন্য প্রত্যেক ওয়ার্ডে দুর্যোগ মোকাবেলা কমিটি গঠন, ফায়ার সার্ভিস, রেড ক্রিসেন্ট, রেডক্রস, সেনাবাহিনী, বিজিবি, পুলিশ, আনসার, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, এনজিওসহ সবস্তরের লোকজন নিয়ে দুর্যোগ প্রতিরোধে প্রস্তুত থাকতে আহবান জানান জেলা প্রশাসক।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •