মুহিববুল্লাহ মুহিব, সিবিএন :

কক্সবাজারের টেকনাফের পাহাড়ের ভাজে ভাজে ডাকাতদের আস্তানা গুড়িয়ে দিচ্ছে পুলিশ। সম্প্রতি উপজেলা থেকে ৬ কৃষক অপহরণ ও একজন গুলি করে হত্যার ঘটনা ভাবিয়ে তুলেছে। পুলিশের অভিযানে বুধবার ভোররাতে হ্নীলা ইউনিয়নের রঙ্গীখালীর গাজী পাড়ার পাহাড়ে নিহত হয়েছে তিন ডাকাত।

এসময় তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়, ৫টি এক নলা বন্দুক, দুইটি থ্রি কোয়াটার বন্দুক, ১০ টি এলজি, একটি বিদেশী পিস্তল, ১১ রাউন্ড রাইফেলের গুলি, ৮ রাউন্ড পিস্তলের গুলি, ২০৫ রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ৭২ রাউন্ড কার্তুজের খোসা ও ৫৬ হাজার ইয়াবা।

এছাড়াও উদ্ধার করা হয়, তিন সেট বিজিবি ও ১০ সেট পুলিশের পোশাক। যা ভাবিয়ে তুলেছে সচেতন মহলকে। তারা বলছেন, এসব বাহিনীর পোশাক নিয়ে ডাকাত কি করতো।

পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, বিভিন্ন সময় তারা এসব পোশাক পড়ে সাধারন মানুষকে হয়তো ভয়-ভীতি দেখাতো। বিনিময়ে অর্থ আদায় করতো। শুধু এবার নয় এরআগেও এবিপিএন ও সেনাবাহিনীর পোশাক উদ্ধার করা হয়। এসব পোশাক সন্ত্রাসীদের হাতে কিভাবে যায় সে প্রশ্নের উত্তর খোঁজে বের করার চেষ্টা করছে পুলিশ।

এবিষয়ে জানতে চাইলে কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. ইকবাল হোসেন সিবিএনকে বলেন, টেকনাফে অভিযানে ডাকাতদের কাছে পাওয়া পোশাক নিয়ে অধিকতর তদন্তে নেমেছে পুলিশ। কিভাবে কোথায় থেকে এসব পোশাক ডাকাতদের কাছে পৌছে দেয়া হয় সে বিষয়ে তদন্ত করবে পুলিশ। তার পর বিস্তারিক বলা যাবে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •