মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার জেলায় করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা অর্ধশত পূর্ণ হয়েছে। সোমবার ৪ এপ্রিল পর্যন্ত কক্সবাজার জেলায় করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ছিলো ৩৯জন। মঙ্গলবার ৫মে একদিনে একজন চিকিৎসক সহ ১১ জনের রিপোর্ট পজেটিভ আসায় কক্সবাজার জেলায় করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৫০-এ উন্নীত হয়। করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা হু হু করে বাড়তে থাকায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ। অনিয়ন্ত্রিত হয়ে পড়েছে জেলায় করোনা ভাইরাস সংক্রামণ। দিন দিন আশংকাজনক হারে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা।

স্বাস্থ্য বিভাগের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য কর্মীরা দিনরাত ঝুঁকি উপেক্ষা করে রোগীদের সেবা দিতে দিতে রীতিমতো হাঁপিয়ে উঠেছেন। তারপরও ক্লান্তি, অবসাদকে দূরে ঠেলে দিয়ে নিরন্তর সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

৫০ জন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর মধ্যে একজন মহিলা রোগী মৃত্যুবরণ করেছেন, ৪ মে পর্যন্ত ৪ জন সুস্থ হয়েছেন। রামু ডেডিকেটেড আইসোলেশন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ২৬ জন করোনা রোগীর মধ্যে ৫ জন রোগী সুস্থ হওয়ার পথে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্র জানিয়েছে।

কক্সবাজার জেলার ৫০ জন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর মধ্যে মহেশখালীতে ১০ জন, টেকনাফে ৫ জন, উখিয়াতে ৬ জন, চকরিয়াতে ১৬ জন, সদর উপজেলায় ৭ জন, পেকুয়া উপজেলায় ৩ জন এবং রামু উপজেলায় ৩ জন।

জেলার একমাত্র কুতুবদিয়া উপজেলায় এখনো কোন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী সনাক্ত করা হয়নি।

রামু উপজেলার কাউয়ার খোপ ইউনিয়নের পূর্ব কাউয়ার খোপ গ্রামের মোহাম্মদ আবদুল্লাহ এর স্ত্রী ছেনু আরা বেগম ৩০ এপ্রিল রাতে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এই মহিলা হচ্ছে, কক্সবাজারে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুবরণ করা রোগী।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •