সিবিএন ডেস্ক:
সরকারকে দেশের মানুষ বাঁচানোর পাশাপাশি অর্থনীতির চাকা সচল রাখার বিষয়টিও দেখতে হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, সরকারকে জনগণের জীবনের পাশাপাশি জীবিকাও দেখতে হচ্ছে। অর্থনৈতিক চাকাও সচল করে রাখতে হবে। তাই কিছু কিছু ক্ষেত্রে সাধারণ ছুটি শিথিল করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৫ সে) সংসদ ভবনের নিজ সরকারি বাসভবন থেকে এক ভিডিওবার্তায় ওবায়দুল কাদের একথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বিএনপি জাতীয় ঐক্যের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে বলেন, ২১০টি দেশে করোনার বিস্তার ঘটেছে। আমাদের প্রতিবেশীসহ পৃথিবীর কোথাও রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে ঐক্যের কোনো প্রয়োজন দেখা দেয়নি। এ সংকটে প্রয়োজন চিকিৎসা ও প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তোলা। সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সমন্বয়। চিকিৎসা বিষয়ক দক্ষ, যোগ্য ও অভিজ্ঞদের নিয়ে এবং বিভিন্ন পেশাজীবী-স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠনদের নিয়ে অভিন্ন শত্রুর বিরুদ্ধে লড়াই করা।

‘করোনার অভিন্ন টার্গেট দল-মত, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে আমরা সবাই। টাস্কফোর্স বিভিন্ন দেশে হয়েছে, হচ্ছে। তবে সেটা ভ্যাকসিন রিলেটেড কিংবা চিকিৎসা বিষয়ক। রাজনৈতিক দলের মধ্যে ঐক্য তথা জাতীয় ঐক্যের প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না। রাজনৈতিক দলের মধ্যে করোনা বিষয়ক অহেতুক ঐক্যের প্রয়োজনীয়তা কী? রাজনৈতিক দলগুলোর এখন প্রয়োজন জনগণের পাশে দাঁড়ানো, নিজেরা সচেতন হওয়া, অন্যকে সচেতন করা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।’

মির্জা ফখরুল ইসলামের বক্তব্যের সমালোচনা করে কাদের আরো বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এই করোনা সংকটকালেও সরকারের কথায় কথায় ব্যর্থতার বিষয় নিয়ে বিষোদগার করছেন। অথচ তারা কখনো জনগণের রাজনীতি করেনি। দুর্যোগের সময়ও তারা সত্যিকার অর্থে জনগণের পাশে দাঁড়াতে পারেনি বরং সরকারের সাফল্য বিভ্রান্তিকর বলে অপপ্রচার চালিয়ে প্রশ্নবিদ্ধ করার অপপ্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে।

‘আমি মির্জা ফখরুলকে প্রশ্ন রাখতে চাই- এই দুর্যোগের সময় তারা কথামালার চাতুরি ছাড়া জনগণকে করোনা মোকাবিলায় কিছুই কি দিতে পেরেছেন? পার্শ্ববর্তী দেশে দেখুন কংগ্রেস তহবিল গঠন করে জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছে।’

সড়ক পারিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শেখ হাসিনা সরকারের সমালোচনা করছেন কিন্তু আন্তর্জাতিকভাবে ফোবর্স ও দ্য ইকোনোমিস্টের মতো প্রেস্টিজিয়াস সাময়িকী তার বলিষ্ঠ নেতৃত্বের প্রশংসা করেছে। শেখ হাসিনার সাফল্যের বিষয়টি দেশে-বিদেশে সমাদৃত হয়েছে। করোনা সংকট মোকাবিলায় তার নেতৃত্ব ও গৃহীত ব্যবস্থার প্রশংসা সর্বত্রই রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে ঘোষণা দিয়েছেন ঈদের আগে হতদরিদ্র কর্মহীন মানুষের আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে। ৬৪ জেলায় শিশুখাদ্যের জন্য ৬৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে এক লাখ ২৪ হাজার মেট্রিক টন চাল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •