শ্যামল রুদ্র , খাগড়াছড়ি :

দীর্ঘ ২ বছর পর স্বজনদের কাছে ফিরে যাচ্ছেন মানসিক ভারসাম্যহীন নারী শাহনাজ পারভীন। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির যৌথ প্রচেষ্টায় আপাতত তার ভবঘুরে জীবনের সমাপ্তি ঘটতে যাচ্ছে। সোমবার ৪,মে বিকেলে খাগড়াছড়ির রামগড়ের ফেনী নদীর ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের জিরো লাইন থেকে শাহনাজ পারভীনকে তুলে এনে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির কাছে হস্তান্তর করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের সদস্যরা।

এরপর বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি খাগড়াছড়ি ইউনিটের সহযোগীতায় কুড়িগ্রাম ইউনিটের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ সময় বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির বোর্ড সদস্য ও খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, বিজিবি’র গুইমারা সেক্টরের কমান্ডার কর্ণেল জিএসএম সেলিম হাসান, রামগড় বিজিবি কমান্ডার লে.কর্নেল তারিকুল হাকিম, উপজেলা চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদীপ কারবারী, ওসি শামসুজ্জামান প্রমুখ অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন।

মঙ্গলবার ৫,মে কুড়িগ্রাম রেড ক্রিসেন্ট ইউনিট স্বজনদের কাছে শাহনাজ পারভীনকে হস্তান্তর করার কথা রয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২ এপ্রিল মানসিক ভারসাম্যহীন শাহনাজ পারভীনকে রামগড়ের ফেনী নদী দিয়ে বাংলাদেশ-ভারতের শুন্য রেখায় পুশ ইন করে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ। এ ঘটনায় বিজিবি’র পক্ষ থেকে প্রতিবাদ জানানোর পাশাপাশি তার পরিচয় শনাক্তের উদ্যোগ নেয়া হয়। গণমাধ্যমে সংবাদ ও বিজিবি’র প্রচারণা দেখে গত ২০ এপ্রিল কুড়িগ্রামের উলিপুর হাতেম আলী শাহনাজকে মেয়ে দাবি করার পর শুরু হয় তাকে ফেরত পাঠানোর আনুষ্ঠানিকতা। উল্লেখ্য,২ বছর আগে কুড়িগ্রাম থেকে নিখোঁজ হয়েছিল শাহনাজ পারভীন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •