মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু, নাইক্ষ্যংছড়ি :
বান্দবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সোনালী ব্যাংক শাখায় করোনা পজিটিভ পাওয়া নারী জন্নাতুল হাবিবা লেনদেন করায় ব্যাংকটি লকডাউন করে সকল কার্যক্রম স্থগিত করেন প্রশাসন। এর পর ব্যাংকের কর্মকর্তা কর্মচারীদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। শমিবার (২ মে) সকল কর্মকর্তা কর্মচারির নমুনা নেগেটিভ আসায় ৩মে রবিবার সকাল ১০টায় উপজেলা প্রশাসন কতৃক নির্দেশে লকডাউন শিথিল করে ব্যাংকের সকল কার্যক্রম চালু করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিন কচি। তিনি বলেন, কোভিড-১৯ পজেটিভ সনাক্ত সদর ইউনিয়নের হাবিবা ২৬ এপ্রিল সোনালী ব্যাংক নাইক্ষ্যংছড়ি শাখায় টাকা লেনদেন করতে আসে। আমরা খবর পেয়ে ২৯ এপ্রিল সোনালী ব্যাংক ওই শাখার সকল কার্যক্রম স্থগিত করে লকডাউনের নির্দেশ দিয় যাতে ওখান থেকে আর কেউ আক্রান্ত না হয় এবং ওই শাখার করোনার সংস্পর্শ সন্দেহে সব কর্মকর্তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। ২মে নমুনার রিপোর্টে সবাইর নেগেটিভ আসাতে মে রবিবার সকাল ১০টায় নির্দেশিত লকডাউন শিথিল করে দেওয়াতে ওই শাখার সকল কার্যক্রম আগের নিয়মে চালু হয়েছে বলে তিনি জানান। ব্যাংক কর্মকর্তারা জানান, ২৬ এপ্রিল ঐ মহিলা আমাদের ব্যাংক শাখায় কিছু পরিমণ টাকা উত্তোলণ করে। পরে জানতে পরি সে মহিলা করোনা আক্রান্ত রোগী। সাথে সাথে প্রশাসনকে অবহিত করি। কারন কোভিড-১৯ ভাইরাস টাকার মাধ্যমে ছড়াতে পারে সেই সন্দেহে আমরা স্বাস্থ্য বিধি মেনে স্বেচ্ছায় হোম কোয়ারেন্টেইনে চলে যায়। আর এদিকে ব্যাংকে লকডাউনসহ অত্র শাখার সকল কার্যক্রম স্থগিত করে দেন প্রশাসন। কর্মকর্তা কর্মচারি মিলে আমরা ৯ জন নমুনা দিয়ে থাকি। তাতে সবাইর রিপোর্ট নিগেটিভ আসায় আমরা সবাই স্বস্তি ফিরে পেয়েছি। আগের মতো সামাজিক দূরত্ব এবং সতর্কতা বজায় রেখে ব্যাংক গ্রাহকদের সেবা দিতে সকল কার্যক্রম চলছে। এখনো পর্যন্ত কোন সমস্যা দেখা যাচ্ছে না। উল্লেখ্য, গত ২৯ এপ্রিল রাতে সোনালী ব্যাংক নাইক্ষ্যংছড়ি শাখার লকডাউনসহ সকল কার্যক্রম স্থগিতের নির্দেশ দেয় উপজেলা প্রশাসন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •