মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

রামুর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমদের খামার থেকে ৫ টি গরু চুরির মামলার আসামি জসিম উদ্দিনকে রামু থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করে করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। শনিবার ২ মে রাতে তাকে রামু ফঁতেখারকুল ইউনিয়নের মন্ডল পাড়া তার বাড়ি থেকে গ্রপ্তার করা হয়। বিষয়টি রামু থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের সিবিএন-কে নিশ্চিত করেছেন।

ওসি মোঃ আবুল খায়ের আরো জানান, ৩ মে রোববার সকালে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। তবে চুরি যাওয়া গরু ও অন্যান্য মালামাল উদ্ধার করা যায়নি। আসামি জসিম উদ্দিনকে রিমান্ড চাওয়া হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমদ নিজে বাদী হয়ে রামু থানায় এ মামলাটি দায়ের করেছিলেন।

গত ১ মে দিবাগত রাত ২টার দিকে রামুর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমদের খামার থেকে ৫ টি গরু, ৩টি মোবাইল ফোন সেট ও অফিসের টেলিভিশন লুট করেছে চোরের দল। অস্ত্রের মুখে খামারের দুই কর্মচারিকে মারধর ও বেধে রেখে লুটতরাজ চালায় চোরেরা। ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের হাইটুপী বুথপাড়া এলাকায় চৌমুহনী-উখিয়ারঘোনা সড়কের পাশ্ববর্তী খামারে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমদ জানান, তাঁর খামারের কর্মচারী নেওয়াজ ও ইয়াসির আরাফাতকে প্রথমে অস্ত্রের মুখে জিম্মি ও পরে পাশ্ববর্তী খামার অফিসে বেধে রেখে লুটপাট চালায়। চোরেরা কর্মচারি ও অফিসে ব্যবহৃত ৩টি মোবাইল ফোন সেট এবং ১ টি এলইডি টেলিভিশন লুট করে। লুট হওযা ৫টি গরুর মূল্য প্রায় ২ লাখ টাকা হতে পারে। সবমিলিয়ে তাঁর ক্ষয়ক্ষতির পরিমান প্রায় আড়াই লাখ টাকা হতে পারে। গত এক সপ্তাহে রামুতে ২ বসত বাড়ি ও খামার থেকে ১৩টি গরু ডাকাতি হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •