গত ৩০ এপ্রিল ২০২০ অনলাইন পত্রিকা কক্সবাজার নিউজ ডটকম (সিবিএন) এ “করোনা (COVID-19) ও স্কুল ফিডিং প্রোগ্রাম” শীর্ষক খোলা চিঠি লিখেছিলেন মহেশখালী কায়দাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুহাম্মদ রবিউল হোছাইন । সেটি কক্সবাজারস্থ বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (WFP) কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষিত হয়েছে এবং প্রতিউত্তর ও পাঠিয়েছেন। সেটি নিম্নে হুবহু তুলে ধরা হল।

– সিবিএন 

 

প্রতি,

মুহাম্মদ রবিউল হোছাইন

প্রধান শিক্ষক

কায়দাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

মহেশখালী, কক্সবাজারে

প্রিয় স্যার,

ডব্লিউএফপি পরিবারের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা নিবেন! আশা করি, কোভিড-১৯ ভাইরাসের এই দিনগুলোতে আপনি সুস্থ আছেন। সংবাদপত্রে আপনার লেখা চিঠি আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। বিশ্বব্যাপী আমাদের কার্যক্রম-সংক্রান্ত প্রতিটি মতামত আমাদের কাছে অমূল্য। আপনার চিঠির জন্য আপনাকে ধন্যবাদ!

আপনার সদয় অবগতির জন্য জানাচ্ছি যে, আমরা এই মাস থেকে উচ্চ পুষ্টিসমৃদ্ধ বিস্কুটগুলোর বিতরণ কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছি। স্কুলগামী শিশুরা পরবর্তী দুই মাসের জন্য ৫০টি করে উচ্চ পুষ্টিসমৃদ্ধ বিস্কুট পাবে, যা তাদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে বিতরণ করা হবে, যেন তারা তা বাসায় বসেই নিরাপদে খেতে পারে এবং এজন্য তাদেরকে এই সময়ে স্কুলে গিয়ে বিস্কুটগুলো সংগ্রহ করতে হবে না। আপনি জেনে আনন্দিত হবেন যে, সারা দেশেই আমরা এই কার্যক্রম পরিচালনা করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। প্রকৃতপক্ষে, বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন দেশের সরকারের সাথে আমরা যৌথভাবে কাজ করছি যেন শিশুরা তাদের প্রয়োজনীয় খাদ্য পেতে পারে। ডব্লিউএফপি-তে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি যেন স্কুল বন্ধ থাকার এই সময়ে শিশুরা যথেষ্ট পরিমাণে পুষ্টি পায়। আর এটি তাদের পরিবারের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কারণ, এতে করে এইসব শিশুর জন্য পুষ্টিসমৃদ্ধ খাদ্য জোগাড় করতে তাদের পরিবারকে সমস্যার মুখোমুখি হতে হবে না। আপনি জেনে আরও আনন্দিত হবেন যে, এসব উচ্চ পুষ্টিসমৃদ্ধ বিস্কুট বিতরণ অনলাইন-ভিত্তিক শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার-এর প্রচেষ্টাকে জোরদার করবে। আমরা আশা করি, যেসব মানুষের জন্য আমরা কাজ করি, তাদের জীবনকে সহজতর করে তোলার জন্য আমরা তাদের পাশে থাকতে পারবো। আপনাকে ধন্যবাদ!

শুভেচ্ছাসহ,
জেফ কাপুর
ভারপ্রাপ্ত ইমার্জেন্সি কোঅর্ডিনেটর
বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি, কক্সবাজার

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •