আবু বকর, উত্তর মহেশখালী:

মহেশখালীর উত্তর নলবিলা (আফজলিয়া পাড়ায়) ৪/৫ টি বসতঘরে পানি ঢুকে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে ।  মীর আকতার কোম্পানীর লোকজন পানি চলাচলের কালভার্ট বন্ধ করে তাদের নির্মাণ কাজ করায় পাহাড়ী ঢল নেমে অন্তত ৪০টি বাড়ীতে ঢুকে পড়ে। এতে আমাদের প্রচুর ক্ষতি হয়েছে । আজ রোববার দুুপুরের বৃষ্টিতে এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। বৃষ্টি থামার পরও বাঁধ কারণে সরে যেতে না পারায় এখনো বাড়িগুলোতে পানি সয়লাব হয়ে আছে।

ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ীর মালিক জিয়াউর রহমান জানান, ৩ মে রবিবার সকালে হঠাৎ ভারী বৃষ্টিতে পাহাড়ী ঢলে উত্তর নলবিলা আফজলিয়া পাড়ার ৪/৫টি বসতভিটায় পানি প্রবেশ করে । এতে ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ীর মালিকরা মীর আকতার কোম্পানীর প্রজেক্ট কর্মকর্তাদের দূষছেন । মুলত তাদের কাজের কেত্রে রাস্তার কালভার্ট বন্ধ করায় পানি চলাচল করতে না পেরে এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। এতে এসব বাড়ির সব জিনিসপত্র ক্ষতি হয়ে গেছে। অন্যদিকে পানি জমাট হয়ে থাকায় মাটি দেয়াল ধসের আশঙ্কা করা হচ্ছে। 

এদিকে মহেশখালীর কালারমারছড়ায় কর্মরত মীর আকতার হোসেন কনস্ট্রাকশন লিঃ এর প্রজেক্ট কর্মকর্তাদের অবহেলার কারনে বার বার ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন স্থানীয়রা । এনিয়ে উক্ত কোম্পানীর বিরুদ্ধে দিন দিন ক্ষোভের দানা বেধেছে ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের মাঝে । সম্প্রতি চলতি গ্রীষ্মকালে মীর আকতার কোম্পানী সাগর থেকে উত্তোলন করে তাদের ভাড়া করা জায়গায় লবনাক্ত বালির স্তুপে পাশ্ববর্তী কৃষকের রোপনকৃত নতুন ধানে উক্ত লবনাক্ত বালির পানিতে একেবারে নষ্ট হয়ে যায় । এনিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সহ সরকারী বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেও কোন সুরাহা পায়নি ।

ইতিমধ্যে আবারও মীর আকতার কোম্পানীর প্রজেক্ট কর্মকর্তাদের অবহেলায় বর্ষা শুরু হতে না হতেই এ কোম্পানীর ধারা স্থানীয় কয়েকটি বসতভিটায় বৃষ্টির পানি ঢুকে ক্ষতি হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে ।

বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্যেধারা মীর আকতার কোম্পানীর প্রজেক্ট কর্মকর্তাদের অবগত করলে উক্ত প্রজেক্টের অফিস থেকে দুই জন কর্মকর্তা সরজমিনে ঘটনা স্থল দেখতে আসেন ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •