মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু:

দেশে চলমান করোনা দূর্যোগে বসে নেই কাঠ চোরাকারবারিরা। রাতের আঁধারে তারা সরকারি বনের কাঠ কেটে পাচার করছে দেশের বিভিন্ন স্থানে। অবৈধ কাঠ চোরাকারবারিদের ধরতে লকডাউনেও বসে নেই বন বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। কচ্ছপিয়া বন বিট কর্মকর্তা শেখ মিজানুর রহমান জানান বাঁকখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা আতা এলাহী কচ্ছপিয়া ও গর্জনিয়া বিট কর্মকর্তা কর্মচারীদের সাথে নিয়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অবৈধ কাঠ পাচার বন্ধে বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করেন। শনিবার (২ মে) ভোর রাতে বাঁকখালী রেঞ্জের গর্জনিয়া থিমছড়ি এলাকা থেকে পাচারকালে প্রায় ১ লাখ টাকার মূল্যের অবৈধ গোল গর্জন কাঠ জব্দ করেন বন বিভাগ ।

কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের আওতাধীন বাঁকখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা এমকে এম আতা এলাহী জানান, শনিবার ভোর রাত ৩টার দিকে বাঁকখালী রেঞ্জের গিলাতলী বিটের গর্জনিয়ার থিমছড়ি এলাকা থেকে প্রায় ১শত ঘনফুট অবৈধ গর্জন গোলকাঠ বোঝাই ডাম্পার গাড়িকে ধাওয়া করার পর অবশেষে গাড়ি চালক কৌশলে গাছ ফেলে গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়। এসময় আমরা গাছগুলো জব্দ করতে সক্ষম হয়। বর্তমানে আটক কৃত কাঠ গর্জনিয়া বন বিট অফিস হেফাজতে রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, জীবন বাঁচাতে আমরা যে উপাদান গুলোর সাহায্য ছাড়া ২ মিনিট বেঁচে থাকতে পারিনা সেই উপাদান সরবরাহ কারী গাছকে বন খেকোরা নির্বিচারে নিধন করছে। আর আমরা আজকে বাঁচাতে পারলাম না গর্জন মাদার ট্রি কে। পরবর্তী প্রজন্মকে বাসযোগ্য পৃথিবী উপহার দিতে চাইলে বন বাঁচাতে এগিয়ে আসতে জনগণের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি। তাই এসব অপরাধীদের সামাজিক ভাবে বয়কট করুন। দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে করোনা থেকে বাঁচতে সবাই ঘরে থাকুন, আমাদেরকেও ঘরে থাকতে দিন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •