শাহেদ মিজান, সিবিএন:

আজ শুক্রবার (১ মে) কক্সবাজার সদরের খুরুশ্কুলের কুলিয়াপাড়া এলাকার করোনা সনাক্ত যুবক ঢাকা ফেরত ছিলেন। পারিবারিক মাছের ব্যবসার খাতিরে মাছের চালান নিয়ে সে নিয়মিত ঢাকা যেতো। শেষবার গত সাতদিন আগে ঢাকা থেকে ফিরলে এলাকার লোকজন তাকে এলাকায় ঢুকতে বাধা দেন। তাই গোপনে পিএমখালী ইউনিয়নের বাংলাবাজারের নয়াপাড়া এলাকায় ফুফুর বাড়িতে ‘লুকিয়ে’ ছিলো এই যুবক।

স্থানীয়রা বলছেন, লুকিয়ে নয়; সে প্রকাশ্যে বাংলাবাজারের বিভিন্ন স্থানে ঘুরাফেরা করেছেন। ভাতিজাকে নিজের বাড়িতে আশ্রয়ে রাখার কথা স্থানীয়দের কাছে স্বীকার করেছেন ওই যুবকের ফুফু হাসনা বেগম। এই নিয়ে তারাও আতঙ্কে রয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

তবে বিভিন্ন জানতে পেরে সত্যতা যাচাইয়ের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ওই যুবকের ফুফুর কাছে জানতে তার বাড়িতে গেলে পরে আবার অস্বীকার করেন ফুফু হাসনা বেগম।

স্থানীয় সংবাদকর্মী শাহী কামরান জানান, ওই যুবক বেশ কয়েকদিন ধরে নয়াপাড়ায় চলাফেরা করেছে জানাজানি হয়েছে। তাই এই যুবক করোনা সনাক্ত হওয়ার বিষয়টি জানাজানি হলে বাংলাবাজার নয়াপড়ার এলাকা জুড়ে এক ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় জনসাধারণসহ তার ফুফুর বাড়ির লোকজন আতঙ্কে হতবিহ্বল হয়ে পড়েছেন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত চৌকিদারসহ স্থানীয় সচেতন লোকজন ওই যুবকের ফুফুর বাড়িতে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন সংবাদকর্মী শাহী কামরান।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহমুদ উল্লাহ মারুফ বলেন, প্রথমে বিষয়টি আমরা জানতাম না। জানার সাথে সাথে গিয়ে ওই যুবকের ফুফুর বাড়িটি লকডাউন করে দিয়েছি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •