মহেশখালী প্রতিনিধি:

মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুর ইউনিয়নে ১শতক জমির জন্য ২মহিলা সহ ৩জনকে পিটিয়ে মারাত্মক জখম করেছে করা হয়েছে। বর্তমান মহিলা মেম্বার শাহিন সোলতানা মিনার স্বামী মাষ্টার শাহাব উদ্দিন ও তার লোকজন এই হামলা চালায় মাস্টার শাহাব উদ্দিনের স্ত্রী বর্তমান মহিলা মেম্বার হওয়ায় ক্ষমতার দাপটে মাত্র ১শতক বা ৩কড়া জমি অবৈধভাবে জবর দখল করে নিতে পবিত্র রমজান মাসে করোনা ক্রান্তিকালে হামলা চালিয় মারাত্বকভাবে অাহত করে।

আহতরা জানান, শাপলাপুরের জাহিদা ঘোনা গ্রামের মোঃরশিদের স্ত্রী মোহছেনা বেগমের সাথে একই গ্রামের অাক্কল অালীর পুত্র শাহাব উদ্দিন মাস্টারের মধ্যে ১শতক ববসতবাড়ীর জমি সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে অাদালতে মামলা চলমান।গত কয়েক দিন পূর্বে শাহাব উদ্দিন ও তার লোকজন বিরোধীয় জমিতে একটি বসত বাড়ী নির্মানের চেষ্টা করে। তখন মোহছেনা মহেশখালী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করে।  উক্ত অভিযোগ ৩০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টার সময় উভয় পক্ষের ৪জন লোক নিয়ে থানার পার্শ্বে বৈঠক হয়। উক্ত বৈঠকে শাহাব উদ্দিন নিজের নামে ক্রয়কৃত জমি বলে দাবী করলেও জমির মূল দলিল হাজির করতে না পারায় ও অাদালতে মামলা চলমান থাকার কারনে বিরোধীয় জমিতে কোন ধরনের স্থায়ী স্থাপনা তৈরী না করার সিন্ধান্ত হয়ে বৈঠক শেষ হয়। বৈঠক শেষে শাহাব উদ্দিন মাস্টার তার দল বল নিয়ে দ্রুত থানা এলাকা ত্যাগ করে শাপলাপুরের জাহিদা ঘোনায় উপস্থিত হয়ে নিজের লোকজন জড়ো করতে থাকে।

ওইদিন ৩০এপ্রিল সন্ধ্যা ৬টার দিকে গোরকঘাটা থেকে মোহছেনা ওতার ভাই শফিউল অালম বাড়ীতে গিয়ে উপস্থিত হওয়ার সাথে সাথে ইফতারের পূর্ব মুহুর্তে মাস্টার শাহাব উদ্দিন ও তার লোকজন প্রতিশোধ পরায়ন হয়ে তাদেরকে কেন থানায় হাজির করার দায়ে ধারালো অস্ত্র সস্ত্র সহকারে মারধর করে মোহচেনার হাত ভেঙ্গে দেয়। নুর মোহাম্মদের স্ত্রী কলি অাকতারকে মুখে চুরিকাঘাত করে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে হাতুডি দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক জখম করে এবং ভাই শফি অালমকেও মারধর করে আহত করে।

শাপলাপুরের ত্রাস মাস্টার শাহাব উদ্দিনগং এর জকির অালম বজাইয়া,অামান উল্লাহ,ফরিদুল অালম,রাহামত উল্লাহ,জসিম উদ্দিন,ফাতেমা, ফারজানাসহ অারো কয়েকজনের মারধরের কবল হতে স্থানীয় লোবজন এগিয়ে এসে অাহত কলি অাকতার, মোহছেনা, শফি অালমকে।

উদ্ধার করে ওইদিন রাতে মহেশখালী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে অাসলে,সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক আহতদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এক শতক জমি নিয়ে এ ধরনের ঘটনায় এলাকায় সমালোচনার ঝড় ওঠে।

এদিকে উক্ত ঘটনার বিষয়ে, মহেশখালী থানার ওসি প্রভাষ চন্দ্র ধর জানায়, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে একটি মারামারির ঘটনা শুনেছি।ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে সুষ্টু তদন্ত পূর্বক অাইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •